kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: একদিকে করোনা তো অন্যদিকে চিন। দুই শত্রুর আক্রমণে কিছুটা হলেও চাপে ভারত সরকার। আর সরকারের উপর চাপ আরও বাড়িয়ে তুলেছে দেশের বিরোধী দলগুলি। এদিকে একের পরে এক চিনা প্রকল্পে বিধিনিষেধ, অ্যাপ বাতিলের মাধ্যমে চিনকে কোণঠাসা করতে উঠে পড়ে লেগেছে সরকার। সেখানে প্রশ্ন উঠে আসছে পিএম ফান্ডে চিনা সংস্থার অর্থ সাহায্যের বিষয়গুলি। এহেন পরিস্থিতির মাঝেই কেন্দ্রের মোদী সরকারকে এবার আক্রমণ শোনালেন সংসদের বিরোধী দলনেতা, তথা কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

একদিকে ভারত-চিন অন্যদিকে করোনা, দুই যুদ্ধকে এদিন সামনে তুলে এনে বুধবার বেশ কড়া সুরে অধীর চৌধুরী বলেন, ‘মোদীজি ভারতে একটি জায়গা রয়েছে যাকে লাদাখ বলা হয়। আপনি হয়তো বিষয়টিকে ভুলে যেতে পারেন কিন্তু ভারত দুই দিক থেকে লড়াই করছে একটি করোনা এবং দ্বিতীয়টি চিন। একটি অতি মারিয়ার একটি ঘরোয়া রোগ। কিন্তু মনে হচ্ছে আপনি শি জিনপিংয়ের কুটিল হাসির ঘোরে আচ্ছন্ন হয়ে রয়েছেন।’ তবে শুধু অধীর চৌধুরী নয়, মোদীর বিরুদ্ধে এদিন আক্রমণের সুর চড়িয়েছেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বল। এদিন তিনি বলেন, ‘ভারতের তরফ থেকে ৫৯ টি চিনা অ্যাপ বন্ধ করা হয়েছে। সত্ত্বেও কেন বাতিল হওয়া ঐ সমস্ত অ্যাপ থেকে টাকা নিলো পিএম কেয়ার ফান্ড? টিকটক থেকে ৩০ কোটি, হুয়েই থেকে ৭ কোটি, শাওমি থেকে ৭ কোটি এবং অপ থেকে ১ কোটি। চীন আমাদের দেশ দখল করছে আর আমরা চীনের থেকে সাহায্য নিচ্ছি। বিষয়টি নিয়ে ভাবুন মোদীজি। দেশপ্রেম!’

প্রসঙ্গত, এর আগে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মনিষ তিওয়ারি সরকারের দিকে আঙুল তুলে জানিয়েছিলেন, ‘আমেরিকা হুয়েই ও জেডটিইকে দেশের নিরাপত্তা জন্য বিপদজনক জানিয়েছে। অথচ এই হুয়েইকে কেন ফাইভ-জি তে অংশগ্রহণ করার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে? অবিলম্বে এটিকে ব্যান করা হোক। নাকি পিএম কেয়ার ফান্ডে এই সংস্থা ৭ কোটি টাকা দিয়েছে বলে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here