kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: ১৪ দিন পেরিয়ে যাওয়ার পর বাড়িতে যাওয়ার দাবিতে উত্তেজনা ছড়াল ধূপগুড়ি গার্লস কলেজের কোয়ারেন্টিন সেন্টারে। সোমবার ওই সেন্টারে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের একাংশ ১৪ দিনের মেয়াদ পার হতেই তারা ব্যাগ নিয়ে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসেন। বাইরে দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্মীরা তাদের আটকে দিলেই ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেন ওই আবাসিকরা। তাদের দাবি, ভিনরাজ্য বা ভিনজেলা থেকে আসার পর এই সেন্টারে ১৪ দিন পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু কোনওরকম উপসর্গ না থাকলেও তাদের ছাড়া হচ্ছে না। এমনকী সোয়াবের স্যাম্পেল নেওয়া হলেও তার রিপোর্ট এখনও মেলেনি।

উল্লেখ্য, এই সেন্টার থেকে গত কয়েকদিন আগেই এক মহিলার শরীরে উপসর্গ দেখা দিলে তাকে জলপাইগুড়ি কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করেই পরীক্ষা শুরু হয়। তাতে তার রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই ব্লক স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে এই সেন্টারের বাকি আবাসিকদেরও সোয়াব টেস্ট প্রক্রিয়া শুরু হয়। এই কোয়ারেন্টিন সেন্টারে যেহেতু একজনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে, সেই কারণে কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ ধূপগুড়ি প্রশাসন।

এদিন আবাসিকদের ক্ষোভের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন ধূপগুড়ি থানার আইসি-সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী। আইসি সুবীর কর্মকার আবাসিকদের জানান, রিপোর্ট আসার আগে যদি কেউ সেন্টার থেকে বেরিয়ে যান, তা হলে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জানা গিয়েছে, সোমবার এই সেন্টারে তৃতীয় দফায় সোয়াব টেস্ট চলছে। এদিন ৩৭ জনের সোয়াব স্যাম্পেল নেওয়া হয়েছে। তবে পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকায় কোয়ারেন্টিন সেন্টারের অধিকাংশ আবাসিক সন্তোষ প্রকাশ করে নির্দেশ মানার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here