ডেস্ক: শহরে ফের ভুয়ো ডাক্তারের ছায়া! প্রেস্ক্রাইব করা ওষুধ খেয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি এক তরুণী। ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুর থানার আদর্শনগর এলাকায়। ঘটনার জেরে জাল সন্দেহে চিকিত্সককে গণপিটুনি করা হয়। ধৃতের নাম রাকেশ মণ্ডল।

তরুণীর পরিবার সূত্রে খবর, ওই এলাকারই বাসিন্দা রমা হালদারের কিছুদিন আগেই ব্রেস্ট টিউমার ধরা পড়ে। তখনই তাঁর বাড়ির লোক রাকেশের কাছে চিকিৎসার জন্য যায়। এরপরেই অভিযোগ ওঠে যে, রাকেশের দেওয়া ওষুধ খাওয়ার পর থেকেই আরও অসুস্থ হয়ে পড়ে রমা। কিন্তু দুদিন আগে তাঁর অবস্থা বাড়াবাড়ি হওয়াতে আবার রাকেশকে ডেকে পাঠানো হয়। কিন্তু প্রথম দিকে আসতে চায়নি সে। পরে লোকজনের চাপে পরে রমাকে স্যালাইন দেয় রাকেশ। এরপরই জ্ঞান হারায় রমা। এই অবস্থায় তাকে তড়িঘড়ি যাদবপুরের একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে এখন তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

স্থানীয় সূত্রে খবর, আদর্শনগরের লকগেট এলাকায় বেশ ভালভাবেই জাঁকিয়ে পসাড় শুরু করেছিল অভিযুক্ত। এমনকি নিজেকে এমবিবিএস পাশ বলেও দাবি করেছিল রাকেশ। দীর্ঘদিন ধরে এলাকারই একটি ওষুধের দোকানে ডাক্তারির ব্যবসা ফেঁদে বসেছিল সে। রমার পরিবারকে এতদিন ধরে অন্ধকারে রেখেই ভুলভাল চিকিৎসা করছিল বলে অভিযোগ। রমার পরিবারের অভিযোগ, প্রথমে রাকেশের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিতেই চায়নি সোনারপুর থানা। কিন্তু পরে স্থানীয়দের চাপে পড়ে রাকেশকে আটক করে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here