ডেস্ক: ইতি পড়ল পিসি-ভাইপোর মধুচন্দ্রিমায়। গোরক্ষপুর ও ফুলপুর লোকসভা উপনির্বাচনে জোট বেঁধে লড়াইয়ে নেমে বিজেপিকে আটকে দিলেও রাজ্যসভায় ধাক্কা খাওয়ার পরই অখিলেশের দলের উপর থেকে সমর্থন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন মায়াবতী। ফলস্বরূপ জোট গড়ার একমাস গড়াতে না গড়াতেই ভেঙে গেল অখিলেশ-মায়াবতীর জোট।

সোমবার ভাইপো অখিলেশের সমাজবাদী পার্টিকে ধাক্কা দিয়ে নিজের সমর্থন তুলে নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন পিসি মায়াবতী। উত্তরপ্রদেশে আসন্ন উপনির্বাচন থেকে শুরু করে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচন পর্যন্ত ‘একলা চলো’ নীতি আপন করবেন বলে এদিন জানিয়ে দেন মায়াবতী।

মায়াবতী তাঁর বহুজন সমাজবাদী পার্টির জেলা স্তরের কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্ত নেন। বৈঠকের পর সংবাদ মাধ্যমের উদ্দেশ্যে জানানো হয়, ‘বিএসপি আসন্ন কোনও উপনির্বাচনে তাদের কর্মীদের অংশীদার করবে না। যেমনটা গোরক্ষপুর ও ফুলপুর উপনির্বাচনে করা হয়েছিল।’

জোট ভাঙার পিছনে বহু কারণ উঠে আসলেও মনে করা হচ্ছে মূলত রাজ্যসভায় হারের সম্মুখীন হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মায়াবতী। এর ফলে উত্তরপ্রদেশে বিজেপি বিরোধী আর কোনও মজবুত জোট রইল না। দেশজুড়ে যখন সমস্ত স্থানীয় দলগুলি একত্রে এসে বিজেপি বিরোধী জোট তৈরিতে ব্যস্ত, সেই সময়ে মায়াবতীর এই সিদ্ধান্ত বিরোধী দলগুলির একতাকে ধাক্কা দিতে পারে। অন্যদিকে, সামনেই নূরপুর বিধানসভা ও কাইরানা লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন। সেখানে পিসিমণির সমর্থন ছাড়া অখিলেশের জন্য লড়াইটা সহজ হবে না চোখ বন্ধ করেই বলে দেওয়া যায়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here