ডেস্ক: সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশের পর উত্তর প্রদেশের ৬ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সরকারি বাংলো ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে যোগী সরকার। মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই বাংলো ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী ও অখিলেশ যাদবকে। তবে অখিলেশ আদালতের কাছে আরও কিছুটা সময় চাইলেও। অন্যপথে হাঁটলেন উত্তরপ্রদেশের ‘বহেনজি’ মায়াবতী।

নোটিস হাতে আসার মাত্র চারদিনের মধ্যেই নিজের সরকারি বাংলোয় নতুন নেমপ্লেট লাগালেন মায়াবতী। নতুন লাগানো সেই নেমপ্লেটের গায়ে লেখা রয়েছে ‘শ্রী কাঁশিরামজি ইয়াদগার বিশ্রামস্থল’। উল্লেখ্য, মায়াবতির এই সরকারি বাংলোতে রয়েছে কাঁশিরামজির বিশাল মূর্তি। এই ঘটনার ফলে অনেকেই মনে করছেন, বাংলো যাতে না ছাড়তে হয় সেই কারনেই এই বাংলোকে বিশ্রামস্থল হিসাবে চিহ্নিত করে, বাসভবন না ছাড়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন এই বিএসপি নেতা। তবে প্রশ্ন উঠছে সরকারি বাংলোকে বিশ্রামস্থল হিসাবে চিহ্নিত করে কি ছাড় পাবেন মায়াবতী?

তবে উত্তরপ্রদেশের এক সরকারী আধিকারিকের কথায়, নেমপ্লেট লাগালেও ছাড় পাবেন না মায়াবতী। যেখানে সুপ্রিমকোর্ট বাংলো খালি করার নির্দেশ দিয়ে দিয়েছেন সেখানে এইসব করে কোনও রকম ফল পাওয়া যাবে না। আদালতের নির্দেশের পর কোনওভাবেই ওই বাংলো গেস্ট হাউস বা মিউজিয়াম বানানো যায় না। আপাতত আইনি নোটিস মেনেই চলতে হবে মায়াবতীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here