news bengali

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা: নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজের করোনা আক্রান্ত রোগী মৃত্যুর জেরে বন্ধ করা হল ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট। মেডিসিন বিভাগের পুরুষ ওয়ার্ডও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আপাতত দুদিন বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই দুদিন স্যানিটাইজ করা হবে ওই ওয়ার্ড ও বিভাগ। রোগীর সংস্পর্শে আসা ৬৪ জন চিকিৎসক, সেবিকা ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। সকলকেই পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টিন সেন্টারে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা থাকবেন রাজারহাটের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে।

৩০ মার্চ নিউমোনিয়ায় অসুস্থ হয়ে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার এক ব্যক্তি এনআরএস- এ ভর্তি হন। প্রথমে তাঁকে পুরুষ বিভাগে রাখা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে সিসিইউ তে স্থানান্তরিত করা হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর থেকেই অসুস্থ ব্যক্তির শরীরে কোভিড- ১৯ উৎসর্গ দেখা দেয়। নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। ব্যক্তি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। রিপোর্টে দেখা যায় ওই ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত।

প্রশ্ন উঠেছে, করোনা উপসর্গ দেখা যাওয়ার পরে কেন অসুস্থকে আইসোলেশন-এ রাখা হল না, তা নিয়ে।

রোগীর সংস্পর্শে আসা চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের করোনা চিকিৎসার জন্য উপযুক্ত পোশাক ছিল না। সংস্পর্শে আসা সকলের মধ্যেই ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। তাই ওই ওয়ার্ড ও বিভাগ বন্ধ রেখে সকলকেই পাঠানো হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইন-এ।

অসুস্থ ব্যক্তি এনআরএস-এ আসার আগে ন্যাশনাল মেডিক্যাল, বেলেঘাটা আইডি, এসএসকেএমের আউটডোরে গিয়েছিলেন। তা নিয়েও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here