kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা:ফের ‘চায়ে পে চর্চায়’ বাধা দিলীপ ঘোষকে। এবার প্রাতঃভ্রমণ এর জন্য ইকোপার্কে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয় তাঁকে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজিত হয়ে ওঠেন বিজেপির কিছু সমর্থক। এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে কড়া পদক্ষেপ নেয় পুলিশ। এরপরেই ধরপাকড় শুরু হতে চলে যান তাঁরা।

বরাবরই প্রত্যেকদিন প্রাতঃভ্রমণে বেড়িয়ে থাকেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। এদিনও সেইমতো ইকোপার্কে পৌঁছেছিলেন তিনি। তবে ইকোপার্কে গিয়ে দিলীপ ঘোষের প্রাতঃভ্রমণ এই প্রথম নয়। তবে এদিন ইকোপার্কে ‘চায়ে পে চর্চা’ র আয়োজন করা হয়েছিল দলের তরফে। এদিকে দিলীপ ঘোষ আজ ইকোপার্কে পৌঁছতেই তাকে আটকে দেওয়া হয় গেটের সামনেই।

এ বিষয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানান, ‘মর্নিং ওয়াকের জন্য সকাল সাড়ে পাঁচটা থেকে সাড়ে আটটা পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আমরা নিয়ম মতই এসেছি। তাহলে কেন বাধা দেওয়া হচ্ছে?’ পার্কের তরফে অবশ্য জানিয়ে দেওয়া হয়, পার্কের ভিতরে রাজনীতির কোনও অনুষ্ঠান হয় না। তাই দিলীপবাবুকে তাঁর লোকজন নিয়ে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

তবে প্রাতঃভ্রমণে বেড়িয়ে বাধা পাওয়ার অভিজ্ঞতা দিলীপ ঘোষের এই প্রথম নয়। চলতি সপ্তাহে বুধবার, সকালে নিউটাউনের অদূরে ভাঙর থানা এলাকায় জোতভীম নামে একটি বাজারে চায়ে পে চর্চার আয়োজন করা হয়। সেখানে পৌঁছতে গেলে তৃণমূল সমর্থকদের কাছে বাঁধা পান বলে অভিযোগ জানান দিলীপ ঘোষ। এমনকি তাঁকে হেনস্থা করা হয়েছে বলেও অভিযোগ দায়ের হয় থানায়। এরপরে একদিন না কাটতেই ফের এদিন ইকোপার্কে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয় তাঁকে।

যদিও তৃণমূলের অভিযোগ, প্রাতঃভ্রমণের নামে রাজনৈতিক সভা বসাচ্ছেন দিলীপবাবু। সেই সভাকে কেন্দ্র করে কিছু এলাকা উত্তপ্তও হচ্ছে। তাই ইকোপার্কে এই ধরনের কোনও ঘটনা যাতে না ঘটে তার জন্য পার্ক কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here