news bengali

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফের রাজ্যপালের সমালোচনায় সরব হলেন রাজ্যের নগর উন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। মুখ্যমন্ত্রীর কেন্দ্রের বঞ্চনার পাল্টা রাজ্যপালের টুইট প্রসঙ্গে সল্টলেক ডেঙ্গু সচেতনতার অনুষ্ঠানে এসে ফিরহাদ হাকিম রাজ্যপালকে “কেন্দ্রের মুখপাত্র হিসেবে ভাল মানায়” বলে কটাক্ষ করলেন। এদিন তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ফিরহাদ বলেন, “মমতা ব্যানার্জি আগেই বলেছেন কেন্দ্র টাকা দিচ্ছে না। সুতরাং উনি রাজ্যের রাজ্যপাল নাকি উনি কেন্দ্রের মুখপাত্র আমি জানি না। তবে যেটা বলছেন সেটা অসত্য বলছেন। তার কারণ প্রধানমন্ত্রীর সামনে মুখ্যমন্ত্রী বারবার ভেঙে বলেছেন‌ এবং ভেঙে বলেছেন বলেই প্রধানমন্ত্রী চুপ করে ছিলেন কিছু বলতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রীর কথা যদি রাজ্যপাল বলেন তাহলে ওনার নিশ্চয়ই প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র হওয়া উচিত ছিল। রাজ্যপাল হওয়া উচিত ছিল না”।

এর পাশাপাশি বৃহস্পতিবার সল্টলেকের নগরোন্নয়ন দপ্তরের পক্ষ থেকে ডেঙ্গু সচেতনতায় তিনটি ভ্রাম্যমাণ গাড়ির উদ্বোধন করা হয়। কেএমডিএর আবাসন এলাকায় সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি স্প্রে, ব্লিচিং পাউডার ছড়ানো হবে এই গাড়ি থেকে। রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী তথা কলকাতা পুরনিগমের মেয়র ফিরহাদ হাকিম তিনটি ভ্রাম্যমাণ গাড়ির উদ্বোধন করেন সল্টলেকের নগরোন্নয়ন ভবন থেকে। এপ্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম জানান, বিভিন্ন পৌরসভা ডেঙ্গি সচেতনতা শুরু করেছে। একই সঙ্গে কেএমডিএ তাদের বিভিন্ন আবাসন এলাকায় সচেতনতা শুরু করেছে। ব্লিচিং পাউডার, স্প্রে দিয়ে যাতে মশা মুক্ত থাকার চেষ্টা করে। অন্যান্যবারের তুলনায় এবছর ডেঙ্গির দাপট কিছুটা হলেও কম।

কারণ দেখা করে তিনি বলেন, করোনার জন্য সাধারণ মানুষ অন্যান্য সময়ের তুলনায় সচেতন আছেন। কম বেরোচ্ছেন এবং চায়ের ভাঁড় ডাবের খোলা কম রাস্তায় পড়ছে যার ফলে জল জমে ডেঙ্গির জীবাণু বৃদ্ধি হতে পারছে না। কলকাতা কর্পোরেশনের তিনটি এলাকা অর্থাৎ দক্ষিণ কলকাতা, চেতলা এলাকা এবং উত্তর কলকাতার কেএমডিএ এর আবাসন গুলোতে এই প্রচার গাড়ি যাবে এবং কর্মীরা ফগ মেশিন দিয়ে স্প্রে করবে। কেএমডিএ তার আবাসন গুলোতে করছে। এছাড়াও কলকাতা কর্পোরেশন নিজেদের মতো করে সচেতনতা এবং স্প্রে, ব্লিচিং পাউডার ছড়ানোর কাজ করছে। সবাই মিলে হাতে হাত ধরে করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here