ডেস্ক: শহরে ফের গ্রিন করিডরের মাধ্যমে প্রতিস্থাপিত হল হৃদযন্ত্র। আবারও বড়সড় সাফল্যের সাক্ষী থাকল শহরবাসী। কলকাতার বাসিন্দা সমীরণ দত্তের(৫২) শরীরে শনিবার রাতে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করে হৃদয় প্রতিস্থাপিত হয়। অন্ধ্রপ্রদেশের যুবক সূর্যনারায়ণ রামুর পথ দুর্ঘটনায় গুরতর আহত হয়। তাঁকে উদ্ধার করে অন্ধ্রপ্রদেশের কাকিনাড়ার অ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলে। কিন্তু কিছুদিন আগেই চিকিৎসকরা তাঁর ব্রেন ডেথ ঘোষণা করেন। এরপরেই চিকিতসকরা তাঁর পরিবারকে অঙ্গদানের কথা বললে তাঁরা রাজি হয়ে যান। এদিন বিমানবন্দরে বিমানবন্দর থেকে গ্রিন করিডরের মাধ্যমে হাসপাতালে পৌঁছে যায় সূর্যনারায়ণের দেহ। শনিবার রাত ১টা নাগাদ শুরু হয় হৃদয় স্থাপন প্রক্রিয়া এবং রাত আড়াইটে নাগাদ সেই প্রতিস্থাপন প্রক্রিয়া শেষ হয়। চিকিৎসকরা জানান, সমীরণবাবুর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

কিছুদিন আগেই কলকাতার এই অ্যাপোলো হাসপাতালেই ঝাড়খণ্ডের দিলচাঁদ সিং নামে এক ব্যক্তির হৃদয় প্রতিস্থাপন করা হয়। সেইসময় পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম হন বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা বরুণ ডিকে নামে এক ব্যক্তি। সেখানকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল তাঁকে। এর কিছুদিনের মধ্যেই বরুণের ব্রেন ডেথের কথা ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এদিকে ঝাড়খণ্ডের দেওঘরের বাসিন্দা দিলচাঁদ সিং বহুদিন ধরে ভর্তি ছিলেন আনন্দপুর ফর্টিস হাসপাতালে। ডাক্তাররা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন হার্ট প্রতিস্থাপন ছাড়া বাঁচানো সম্ভব নয় দিলচাঁদকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here