ডেস্ক: রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালের পর এবার সাফল্যের সঙ্গে হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপনের নজীর গড়ল সরকারি হাসপাতাল। এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে রীতিমতো গ্রিন করিডর করে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপিত হল রাখাল দাস নামে এক ব্যক্তির শরীরে। যার যুবকের হৃৎপিণ্ড রাখাল দাসের শরীরে প্রতিস্থাপিত হয়েছে ব্রেন ডেথ হওয়া সেই যুবকের দক্ষিণ ২৪ পরগনার পূজালির বাসিন্দা নাম সৈকত লাট্টু।

ব্রেন টিউমার হওয়ার কারণে দীর্ঘদিন ধরে এসএসকেএমে ভর্তি ছিলেন সৈকত। দীর্ঘ চিকিৎসার পরেও কোনও সাড়া মেলেনি তাঁর। শুক্রবার এসএসকেএমেই ব্রেন ডেথ হয় সৈকতের। তাঁর পরিবারের লোকজনকে খবর দেওয়া হলে রাতেই হাসপাতালে ছোটে সৈকতের বাড়ির লোক। তাঁর অঙ্গ অন্যের শরীরে প্রতিস্থাপনেও সম্মতি দেন তারা। পরিবারের সম্মতি পেয়ে রাতেই গ্রিন করিডর করে সৈকতের হৃৎপিণ্ড আনা হয় পিজি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে ছিল ৩ জন গ্রহীতা। তারমধ্য থেকে একজনের হৃৎপিণ্ডের সঙ্গে মিলে যায় সৈকতের হৃৎপিণ্ড। তিনি রানিগঞ্জের বাসিন্দা রাখাল দাস। এরপর রাতেই একটি চিকিৎসকের দল গঠন করে চার ঘন্টা অস্ত্রপচারের পর রাখাল দাসের শরীরে সফলভাবে স্থাপিত হয় সৈকতের হৃৎপিণ্ড।

উল্লেখ্য, এই রাজ্যে হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপনের একমাত্র নজীর রয়েছে এইমস হাসপাতালে। তারপর মেডিকেল কলেজ হল প্রথম সরকারি হাসপাতাল যেখানে সফলভাবে প্রতিস্থাপিত হল হৃৎপিণ্ড। হাসপাতালের তরফে জানা গিয়েছে আপাতত সুস্থ রয়েছেন রাখাল দাস। তাঁকে নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here