kolkata news

Highlights

  • ক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুমারগঞ্জ থানা এলাকায়
  • অভিযুক্ত সোনামন দাস নাবালিকার গামছা দিয়ে বেঁধে মুখ চেপে বাড়ির পশ্চিম দিকে একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়
  • চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে নাবালিকাকে উদ্ধার করে


নিজস্ব প্রতিনিধি, বালুরঘাট:
এক নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুমারগঞ্জ থানা এলাকায়। অভিযোগ, ষষ্ঠ শ্রেণিতে পাঠরত বছর এগারোর নাবালিকা তার বাড়ির সামনের রাস্তায় বসে রোদ পোহাচ্ছিল। সেই সময় অভিযুক্ত সোনামন দাস নাবালিকার গামছা দিয়ে বেঁধে মুখ চেপে বাড়ির পশ্চিম দিকে একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে সে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। নাবালিকা বাঁচবার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেও পারেনি। শেষমেষ চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে নাবালিকাকে উদ্ধার করে বলে জানান নাবালিকার পিতা।

এই ঘটনাটি নিয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুমারগঞ্জ থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। কুমারগঞ্জ থানা এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তদের সন্ধানে পুলিশ তল্লাশিতে নামলেও এখনও তারা অধরা। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, পৌষ সংক্রান্তির গঙ্গাস্নান উপলক্ষে ধর্ষিতা নাবালিকার বাবা ও ঠাকুমা আত্রেয়ী নদীতে পুণ্যস্নান করতে গিয়েছিলেন। সেই সময় নাবালিকা ও তার মা বাড়িতে ছিলেন। নাবালিকা অত্যাধিক ঠান্ডার কারণে বাড়ির সামনের রাস্তায় বসে রোদ পোহাচ্ছিল। আচমকাই নাবালিকার দু’তিনটি বাড়ির পাশের এক বয়স ছত্রিশের প্রতিবেশী তার মুখে গামছা বেঁধে মুখ চেপে তাঁকে নির্জন পুকুর পাড়ে নিয়ে গিয়ে বলপূর্বক ধর্ষণ করে। সেই সময় নাবালিকার আর্তনাদে আশপাশের প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে বলে জানান নির্যাতিতার পিতা। অভিযুক্ত সোনামন দাস ঘটনার পর থেকে পলাতক বলে জানা যায়। আজ নির্যাতিতার মেডিক্যাল হয়েছে বলে জানান তার পিতা।

কয়েকদিন আগে কুমারগঞ্জে এক নাবালিকাকে গণধর্ষণের পর গলা কেটে খুন করা হয়েছিল। পরে নাবালিকাটিকে মোটর সাইকেল থেকে পেট্রল ঢেলে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছিল। সেই ক্ষত এখনও দগদগে।এদিকে, অভিযুক্তদের দ্রুত ও চরম শাস্তির দাবিতে পথে নেমেছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব থেকে শুরু করে বাম-কংগ্রেস সকলে। কুমারগঞ্জে ছুটে এসেছেন সাংসদ তথা বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চ্যাটার্জি, বিজেপির যুব মোর্চা সভাপতি দেবজিৎ সরকার, বালুরঘাট লোকসভার সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। সেই ঘটনার রেশ না মেটার আগে আবার একটি ধর্ষণের অভিযোগের ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকার লোকজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here