মহানগর ওয়েবডেস্ক: চিনের আগ্রাসী মনোভাব শুধু ভারত নয় সমানতালে জারি রয়েছে ‘বন্ধু সম’ নেপালের প্রতিও। ভারতের সঙ্গে সীমান্ত সংঘর্ষের মাঝেই শীতের মৌসুমে নেপালের সেনাবাহিনী অনুপস্থিতিতে তাদের জমি ধীরে ধীরে কব্জা করার পথে হাঁটছে ড্রাগন ফৌজ। তারই এক নমুনা প্রকাশ্যে এল সম্প্রতি। জানা গিয়েছে নেপালের হুম্লা জেলার নামখা গ্ৰামে গোপনে বিল্ডিং তৈরি করেছে তারা। একটি কিংবা দুটি নয় একেবারে নটি ইমারত তৈরি করা হয়েছে চিনের তরফে। শুধু তাই নয়, ওই ইমারতের পার্শ্ববর্তী এলাকায় নেপালের গ্রামবাসীদের প্রবেশ নিষেধ করে দিয়েছে লাল ফৌজ।

এই তথ্য প্রকাশ এনেছেন ওই গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান বিষ্ণু বাহাদুর লামা। সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তার দাবি, সম্প্রতি সীমান্তবর্তী গ্রামের ভিতরে এতগুলি ইমারতকে তৈরি করেছে তা জানতে এলাকায় গিয়েছিলেন ওই পঞ্চায়েত প্রধান। তবে তাকে ওই অঞ্চলে প্রবেশ করতে দেয়নি চিনের সেনাবাহিনী। এরপর বহু দূর থেকে নিজের মোবাইলে চিনের ওই নির্মাণ কার্যের ছবি তোলেন তিনি। তার দাবি চিন-নেপাল সীমান্ত থেকে নেপালের অন্তত এক কিলোমিটার ভিতরে ৯টি ইমারত তৈরী করেছে চিনের সেনা। এ প্রসঙ্গে ওই অঞ্চলে নিয়োজিত চিনের সেনা আধিকারিকের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেন তিনি। তবে তার সঙ্গে দেখা করতে ব্যর্থ হন লামা। তার অভিযোগ নেপালের মানুষের নিজের জমিতে তাদের প্রবেশ করতে দিচ্ছে না চিনের সেনাবাহিনী।

উল্লেখ্য, চিনের আগ্রাসন নীতির কারণে এই দেশের উপর রীতিমতো ক্ষুব্ধ প্রতিবেশীরা। সম্প্রতি ভারতের সঙ্গে সীমান্ত ইস্যুতে চিনের সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। তবে নিজেদের আগ্রাসন নীতি এখনো বহাল তবিয়তে জারি রেখেছে ড্রাগন ফৌজ। ভারতের সঙ্গে সংঘর্ষের মাঝেই মিত্র দেশ নেপালে তারই নমুনা পেশ করল চিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here