ডেস্ক: অমিত শাহের ভুলে প্রথম থেকেই আত্মঘাতী গোল খেয়ে থাকা বিজেপির চাপ আরও বাড়ল কর্ণাটকে। একই সঙ্গে কার্যত বিনা যুদ্ধে পরপর অ্যাডভান্টেজ পেয়ে এগিয়ে গেল রাহুল গান্ধির কংগ্রেস।

এবারে অবশ্যে অমিত শাহ কোনও বেফাঁস কথা বলেন নি। রাহুলকে কর্ণাটকে অ্যাডভান্টেজ এনে দিলেন এআইএমআইএম প্রধান আসাউদ্দিন ওয়েসি। নিজের অবস্থান থেকে প্রায় ১৮০ ডিগ্রী ঘুরে জানিয়ে দিলেন, আসন্ন কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনে কোনও প্রার্থী দেবে না তাঁর দল অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল। এর ফলে কর্ণাটকের ১৬ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোট, যার বেশিরভাগটাই ওয়েসির দলের পক্ষে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল, তা এখন কংগ্রেসের পক্ষেই যাবে। এবং সংখ্যালঘু ভোট যে আসন্ন কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনের ফলফলের ক্ষেত্রে নির্ণায়ক ফ্যাক্টর হবে তা বলার বাকি রাখেনা।

আগামী ১২ মে কর্ণাটকের ২২৪টি বিধানসভা আসনে নির্বাচন, ফলপ্রকাশ ১৫ মে। একাধিক ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকার চাপে থাকলেও দেশজুড়ে ওঠা গেরুয়া ঝোড়ের আঁচ এই দক্ষিণি রাজ্যেও ফেলতে চাইছেন মোদী-শাহরা। অন্যদিকে, ক্ষমতাসীন কংগ্রেস সরকার আর রক্তক্ষরণ সহ্য করতে চাইবে না। কর্ণাটকে কংগ্রেস সরকার এগিয়ে থাকলেও ওয়েসির দল প্রার্থী দিলে মুসলিম ভোট পুরোটাই তাদের ঝুলিতে চলে যাওয়া প্রায় পাকা ছিল। সেই অবস্থায় একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসাও সংশয় হয়ে যেত রাহুলের দলের জন্য।

কিন্তু আসাউদ্দিন ওয়েসির এক চালে পুরো গেমটাই কংগ্রেসের কোর্টে চলে গেল। মুখে তিনি কংগ্রেসকে সমর্থন না করলেও খাতায় কলমে তা করে দিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃতীয় ফ্রন্টের পরিকল্পনায় ওয়েসির দল থাকলেও, এই পদক্ষেপে সাফ হয়ে গেল যে কংগ্রেস ছাড়া কোনও বিরোধী ফ্রন্টের পরিকল্পনা যে তাঁর নেই।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here