মহানগর ওয়েবডেস্ক: যে কোনও মুহূর্তে উপত্যকায় ঘটে যেতে পারে ভয়াবহ কিছু। পরিস্থিতির জেরে জম্মু কাশ্মীরে পাঠানো হয়েছে বাড়তি ২৫ হাজার সেনা। সরকারী ভাবে ফিরে আসতে বলা হয়েছে অমরনাথের তির্থযাত্রীদের। শুধু তাই নয়, যে সমস্ত পর্যটক উপত্যকায় বেড়াতে গিয়েছেন ফিরে আসার অনুরধ করা হয়েছে তাঁদেরও। এহেন পরিস্থিতিতে খুব স্বাভাকিকভাবে ছড়িয়েছে আতঙ্ক। তবে দেশের শেষ প্রান্ত থেকে দ্রুত ফিরে আসার একমাত্র উপায় বিমান। কিন্তু সে সামর্থ নেই অনেকেরই। তার উপর আপতকালিন পরিস্থিতিতে ভাড়া পড়ে কয়েকগুণ বেশি। এমন পরিস্থিতিতেই কাশ্মীরের অভিযাত্রীদের সহায় হয়ে উঠল যাত্রীবাহী বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়া। এক ধাক্কায় কয়েকগুণ কমিয়ে দেওয়া হল বিমান ভাড়া।

এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে সম্প্রতি একটি টুইট করে জানানো হয়েছে, ‘আপতকালিন পরিস্থিতিতে এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে শ্রীনগর থেকে দিল্লি এবং দিল্লি থেকে শ্রীনগরের বিমানের ভাড়া কমানো হচ্ছে। শ্রীনগর থেকে দিল্লির বিমান ভাড়া পড়বে মাত্র ৬ হাজার ৭১৫ টাকা এবং দিল্লি থেকে শ্রীনগরের ভাড়া পড়বে মাত্র ৬ হাজার ৮৯৯ টাকা। এই পরিষেবা ১৫ আগস্ট পর্যন্ত লাগু থাকবে।’ বয়লার অপেক্ষা রাখে না এয়ারইন্ডিয়ার এই সিদ্ধান্তে খুশি উপত্যকায় আটকে পড়া অভিযাত্রিরা। কারণ অন্যান্য বিমান সংস্থাগুলি যেমন ইন্ডিগো, স্পাইস জেট, গো এয়ার এদের ভাড়া ওই একই রুটে কমকরে ১০ হাজার থেকে ২২ হাজার টাকা। যা ব্যয় করতে অসমর্থ অনেকেই। ফলে উপত্যকা থেকে বিমানে ফেরার ধুম লেগেছে অভিযাত্রীদের।

শুধু তাই নয়, যাত্রীদের ফেরাতে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সেনাও। জানা গিয়েছে, গতকাল রাত থেকে ৬ হাজারের বেশি পর্যটককে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে শ্রীনগরের বাইরে। যার মধ্যে প্রায় ৩৮৭ জনকে দফায় দফায় এয়ারলিফট করে নিয়ে গেছে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারক্রাফ্ট। বিগত কয়েকদিনের মধ্যে উপত্যকা থেকে সমস্ত অভিযাত্রি ও পর্যটক দের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে বলে আশাবাদী সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here