ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রী আসনে বসার পর থেকেই শিরোনামে থাকতে পছন্দ করছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লেবকুমার দেব। কখনও মহাভারতের যুগে ইন্টারনেট ব্যবহারের কথা বলে, কখনও বা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মাথার ডাক্তার দেখানোর পরামর্শ দিয়ে। কিন্তু কেবল রাজনীতি নয়, এবার রূপোলী পর্দার সুন্দরীদের নিয়েও বিতর্ক ছড়াতে ছাড়লেন না তিনি। তাঁর মতে, বিশ্ব সুন্দরী হওয়ার যোগ্যই নন ১৯৯৭ সালের বিজয়ী ডায়না হেডেন। এমনকি আন্তর্জাতিক সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাগুলি কেবল লোক দেখানো বলে মনে করেন তিনি।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে করা বিতর্কিত মন্তব্যের রেশ এখনও কাটেনি। বিপ্লব নিজে আদার ব্যাপারী (রাজনীতিবিদ) হলেও জাহাজের খবর রাখতেও যে তিনি বেশ পছন্দ করেন তা বোঝা গেল বিশ্ব সুন্দরীদের নিয়ে করা তাঁর এই মন্তব্যে। অমিতাভ বচ্চনের পুত্রবধু ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে বিশ্ব সুন্দরী হওয়ার যোগ্য মনে করলেও ডায়না হেডেন কী করে বিশ্ব সুন্দরীর খেতাব পেতে পারেন এই নিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন বিপ্লব।

কেবল সুন্দরীদের প্রতি বিপ্লববাবুর মন রয়েছে এমনটা নয়। মহিলাদের ব্যবহার করা প্রসাধনী সামগ্রি নিয়েও আপত্তি রয়েছে তাঁর। এই প্রসঙ্গে তাঁর দাবি, আগে ভারতীয় মহিলারা কসমেটিকস ব্যবহার করতেন না। গায়ে মাটি ঘষে স্নান করতেন। এমনকি সৌন্দর্য সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাগুলিকেও একহাত নিয়ে তিনি বলেন, যারা এই প্রতিযোগিতা আয়োজন করেন তারা আসলে কসমেটিক্স মাফিয়া। বিপ্লব মনে করেন, ঐশ্বর্য রাই বচ্চন ভারতীয় মহিলাদের তুলে ধরেছেন। কিন্তু ডায়না বিশ্ব সুন্দরীর খেতাব জেতার যোগ্যই নন।

দিনকয়েক আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর নেতাদের সতর্ক করে দিয়েছিলেন সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরা দেখলেই বেশি কথা না বলতে। তারা বলেন তাঁর সংবাদ মাধ্যমও রসদ পায় লেখার। কিন্তু ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মোদীর সেই বানী খুব একটা কানে তুলেছেন বলে মনে হয়না। নাহলে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে করা মন্তব্যে শোরগোল হওয়ার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সিলেবাসের বাইরে গিয়ে আলপটকা কথা বলে ফের শিরোনামে উঠে আসতে চাইতেন না তিনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here