pic-kolkata bengali news

ডেস্ক: অবশেষে দীর্ঘ নাটকের পর্দাফাঁস। বেশ কয়েকদিন দেশবাসীকে সাসপেন্সে রাখার পর কংগ্রেসের তরফ থেকে ঘোষণা করা হল বারাণসী কেন্দ্রের প্রার্থীর নাম। নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে বারাণসী থেকে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদরার দাঁড়ানোর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সেই আশঙ্কা ও সম্ভাবনায় জল ঢেলে এদিন কংগ্রেসের তরফে বারাণসী কেন্দ্রে অজয় রাইকে প্রার্থী করা হল। ফলে সাফ হয়ে গেল, এবারের লোকসভা নির্বাচনে আর লড়ছেন না সোনিয়া তনয়া প্রিয়াঙ্ক গান্ধী।

২০১৪ সালেও এই কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হন অজয় রাই। কিন্তু সেবার তৃতীয় স্থান পেয়েই সন্তুষ্ট হতে হয়েছিল তাঁকে। এই কেন্দ্রে বিপুল ব্যবধানে জয়লাভ করে প্রধানমন্ত্রী হন নরেন্দ্র মোদী। ফলে মোদীর বিরুদ্ধে প্রিয়াঙ্কার টক্কর দেখার জন্য মুখিয়ে ছিলেন রাজনীতি পিপাসুরা। কিন্তু এবারের মতো সেই তৃষ্ণা মিটল না। অন্যদিকে এদিনই বারাণসীতে বিশাল রোড-শো করে নিজের মনোনয়নপত্র জমা দেবেন নরেন্দ্র মোদী। ফলে যদি প্রিয়াঙ্কাকে এই কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করা হত, তবে আজকের মধ্যেই সেই সিদ্ধান্ত চলে আসত। কিন্তু এদিন অজয় রাইকেই পুনরায় বারাণসী কেন্দ্রে প্রার্থী করে সেই আশায় জল ঢেলে দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

মোদী বনাম গান্ধীর এই ব্লকবাস্টার এই লড়াই দেখার জন্য মুখিয়ে ছিলেন কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরাও। কিন্তু তাদের অপেক্ষা ক্রমশ দীর্ঘায়িত হচ্ছিল। মোদীর বিরুদ্ধে লড়তে প্রিয়াঙ্কা নিজে ইচ্ছাপ্রকাশ করেন একাধিকবার। শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার দেওয়া হয় সভাপতি রাহুল গান্ধীকে। রবিবার ইস্তক একাধিকবার বারাণসীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার বিষয়ে মুখ খুলতে শোনা গিয়েছিল প্রিয়াঙ্কাকে। ‘দল চাইলেই তিনি তৈরি’ বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর লড়া হল না তাঁর।

তবে অভিজ্ঞ রাজনৈতিক বিশ্লেষক মহল জানাচ্ছে, এই কেন্দ্রে প্রিয়াঙ্কা লড়ার জল্পনা তৈরি হলেও সেই সম্ভাবনা কখনই ছিল না। কারণ, নেহেরু থেকে ইন্দিরা জমানা পর্যন্ত প্রতিপক্ষের হেভিওয়েট নেতাকে জোর করে হারানোর প্রথা কংগ্রেসের সংস্কৃতিতে নেই। একবার অবশ্য রাজীব গান্ধী কেবল ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। ১৯৮৪ সালে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমবতী নন্দন বহুগুনার বিরুদ্ধে এলাহাবাদ কেন্দ্র থেকে অমিতাভ বচ্চনকে প্রার্থী করেছিলেন। সেবার অমিতাভ দু লক্ষের ব্যবধানের কাছাকাছি ভোটে জিতেছিলেন। কিন্তু তারপর আর সে পথ ধরে হাঁটেননি রাজীব। রাহুলও তাই নিজের বোনকে মোদীর বিরুদ্ধে না লড়িয়ে দিয়ে অন্য কোনও আসন থেকেই সাংসদ হিসেবে দেখতে চাইবেন। তাই প্রিয়াঙ্কাকে এই আসন থেকে প্রার্থী করা হল না বলে মত অনেকের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here