Amritsar: Members of the Talmel Sangathan, an umbrella organisation of various farmers' unions, take part in an hour long 'Lalkar Rally' to press for their various demands, in Amritsar, Monday, Sept. 14, 2020. (PTI Photo) (PTI14-09-2020_000304B)

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কৃষি বিল নিয়ে এনডিএ–র মধ্যে ফাটল চওড়া হচ্ছে। গতকালই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শিরোমনি আকালি দলের হসমিরত কৌর বাদল পদত্যাগ করেছিলেন। তারপরও দলের শীর্ষ নেতা সুখবির সিং বাদল সরকার ও বিজেপি’কে সমর্থনের কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই সুর বদলে তিনি জানিয়ে দেন এরপর এনডিএ তে তাদের দল থাকবে কিনা সেটা তারা বিবেচনা করে দেখবেন।

সংসদের বাইরে সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাদল জানান, যেদিন থেকে অর্ডিন্যান্স সংসদে পেশ করার জন্য আনা হয়েছিল সেদিন থেকেই  হসমিরত কৌর বাদল দৃঢ়তার সঙ্গে প্রতিবাদ করেছিলেন এবং এই বিষয়ে পঞ্জাবের মানুষ এই অর্ডিন্যান্স নিয়ে কী ভাবছে সে কথা জানিয়েছিলেন। বিশেষ করে কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করার কথা বলেছিলেন। কিন্তু ওরা অর্ডিন্যান্স পাশ করিয়ে দিল।‘’

প্রাথমিক ভাবে এই কৃষি সংস্কারে তার দল সমর্থন জানিয়েছিল মনে করিয়ে দিলে বাদল বলেন, ‘সরকারের জোটসঙ্গী হওয়ার কারণে সরকার যা ভাবছে সে কথা তারা সাধারণত কৃষকদের জানাতেন। অন্যদিকে কৃষকদের অভিমতও আমরা সরকারকে জানানো হতো। ‘’আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে দেখলাম ভারত সরকার বিলের সামান্য অংশও পরিবর্তন না করে পেশ করল। যে সরকার কৃষকদের অধিকারের কথা ভাবে না সেই সরকারের অংশ হয়ে থাকা যায় না। আমরা বিগত দু’মাস ধরে সরকারকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু বিল পাশ হয়ে যাওযার পর আমরা আর পিছিয়ে আসতে পারি না’’ বলে জানান শিরোমনি আকালি দলের নেতা।

এরপরও এনডিএ’র জোটসঙ্গী হয়ে থাকবেন কিনা জানতে চাইলে বাদল বলেন, ‘’আমরা এনডিএ–র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। আমরা দলের মধ্যে আলোচনা করব। পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করব। আমাদের দলে একটি কোর কমিটি আছে তারাই সিদ্ধান্ত নেবে। দেখা যাক কোন কর্মসূচি নেওযা হয়।‘’ আগে কৃষি সংস্কার বিষয়ে তিনটি অধ্যাদেশ সংসদে পেশ করা হলে বিরোধীরা ওয়াক আউট করেন। অধিকাংশ বিরোধীদল সহ সরকারকে ইস্যুভিত্তিক সমর্থন করা কয়েকটি দল, যেমন বিজু জনতা দল এবং টিআরএস এই বিলের বিরোধিতা করে।

এই বিল কৃষি ক্ষেত্রে এক আমূল সংস্কার নিয়ে আসছে, সরকারের পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হলেও হরিয়ানা ও পঞ্জাবে বিল নিয়ে প্রবল বিক্ষোভ শুরু হয়। গত দু’সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ চলতে থাকে। কৃষকদের বক্তব্য এই আইন কার্যকর হলে তাদের আয় বড়সড় ধাক্কা খাবে। শিরোমনি আকালি দল প্রথমদিকে এই বিলকে সমর্থন করলেও রাজ্যে কৃষকদের প্রতিক্রিয়া দেখে সমর্থন হারানোর ভয় ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে বিরোধিতা শুরু করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here