FotoJet1315

ডেস্ক: ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর বয়স হয়েছে প্রায় কুড়ি বছর। এত বছরের সিনেমা কেরিয়ারে বহু হিট ও ফ্লপ ছবি দিয়েছেন তিনি। কিন্তু সাময়িকভাবে বর্তমানে দর্শকদের জন্য আলাদা ধরণের সিনেমা উপহার দেন। সেটা বিগত কয়েকবছর ধরে দেখতে অভ্যস্ত হচ্ছে বলিউড। কিন্তু অক্ষয় মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন ভারতীয় সিনেমা সমাজকে অনেকটাই শিক্ষির করতে সাহায্য করেন। তাই তিনি ‘প্যাডম্যান’ ও ‘টয়লেট এক প্রেম কথা’ সিনেমাতে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। সমাজের জন্য কেমন প্রভাব ফেলে এই সিনেমা। অক্ষয় এব্যাপারে জানান, ”আমার মনে হয় সিনেমা হল যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম। বেশিরভাগ মানুষের কাছে সহজেই পৌছানো যায় শুধুমাত্র ভারতে নয় বিদেশেও সিনেমার মাধ্যমে পৌছানো যায় সহজে।

সিনেমা এমন একটা মাধ্যম যেখানে বেশিরভাগ মানুষকে সহজে শিক্ষিত করা যায়। এর থেকে বড় শিক্ষার মাধ্যম ভারতবর্ষ কেন গোটা বিশ্বে নেই। দেশকে উন্নত করতে গেলে ও সমাজকে সচেতন করতে গেলে সিনেমাকে সকলের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। তাই আমার বর্তমানে সিনেমাগুলি সেইধরনের হয়। সামাজিক বার্তা দেওয়ার জন্যই এখন আমি সিনেমা বানাই। এটা আমার দায়িত্ব বলে মনে করি আমি।” মেগাস্টার রজনীকান্তের বিপরীতে টলিউডে অর্থাৎ দক্ষিণী সিনেমাতে ডেবিউ করতে দেখা গিয়েছিল অক্ষয় কুমারকে। সেই সিনেমা ব্লকবাস্টার হয়েছে গোটা বিশ্বে।

 

অক্ষয় এই বিষয়ে জানিয়েছেন,”২.০ হচ্ছে একটি মেগা সিনেমা। আর আমার জীবনে প্রথম এত বড় কাজ। কেরিয়ারে আমি বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছি। কিন্তু ২.০ আমার চরিত্র ছিল একটু আলাদা। তাই নিজেকে প্রমাণ করার ব্যাপার ছিল সেখানে। বলিউডে এতবছর কাজ করেছি। এত টাকা, ট্যালেন্ট ও টেকনোলজি আমি জীবনে দেখিনি যেটা দক্ষিণে গিয়ে আমি দেখেছি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here