kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নাগরিকত্ব সংশোধী আইন (সিএএ) নিয়ে তোলপাড় দেশ৷ যার আঁচে জ্বলছে বাংলা থেকে দিল্লি৷ অসম সহ উত্তর পূর্বে প্রথম সিএএ বিরোধী মিছিল হিংসার আকার নেয়৷ সাত দিনে শুধু অসমে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে স্কুল পড়ুয়া সহ ৭ জন মারা গিয়েছে৷ সেই আঁচ পৌছে গিয়েছে রাজধানী দিল্লিতে। গতকাল জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার পড়ুয়ারা সিএএ-এর প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছিলেন। ঠিক তখনই সেই পড়ুয়াদের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় পুলিশের৷

জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে দেখা যায় দিল্লি পুলিশকে। অপরদিকে জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশের এই লাঠিচার্জকে কিছু নেটিজেন সাপোর্ট করেছেন। আর তাঁদেরই সমর্থন করেছেন অক্ষয় কুমার? এই খবরে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। গতকাল একটি ট্যুইটে বেশ কিছু নেটিজেনের ভিডিও ছিল পুলিশের পদক্ষেপকে সাপোর্ট করেছেন। আর সেই ভিডিওতেই লাইক দিয়েছেন অক্ষয়। আর তাতেই উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। তাঁর মানে কী সত্যি? অক্ষয় সাপোর্ট করছেন ঘটনাটিকে? এদিন অভিনেতা নিজের অবস্থান পরিস্কার করে জানিয়ে দিয়ে বলেছেন, ”যে লাইকটি হয়েছে আমার ট্যুইট থেকে সেটা ভুলবশত হয়েছে। আমি ট্যুইটে স্ক্রোলিং করছিলাম, তখন ঘটনাটি দেখতে গিয়ে লাইক পড়ে গিয়েছি। যার জন্য আমি ক্ষমা চাইছি। আপনারা এটা জানেন ট্যুইটারে আনলাইক করার কোনও সুযোগ নেই, তাই আমি ক্ষমা চাইছি আপনাদের কাছে। আমি কোনওভাবেই পুলিশের এই ঘটনাকে সমর্থন করিনা।”


পুলিশের সঙ্গে এই সংঘর্ষে দুপক্ষের অনেকেই আহতও হয়েছেন৷ গতকালের ঘটনায় ৫০০ পড়ুয়ার নামে এফআইআর করেছে দিল্লি পুলিশ৷ এদের মধ্যে ৫১ জনকে রবিবার রাতে আটক করেছিল দক্ষিণ দিল্লির পুলিশ৷ সোমবার সকালে তাদের ছেড়ে দিয়েছে৷ গতকাল দুপুরেই জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে পরপর তিনটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। যদিও সেই ঘটনায় যে পুলিশ দায়ী সেই নিয়ে শুরু হয়েছে চাপানউতোর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here