kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: বাড়ির সামনে কমন প্যাসেজে গুমটি বসিয়ে চলছিল মদের আসর। বাড়ির গেটের সামনে জোর করে গাড়ি পার্কিং করা হচ্ছিল। এই কাজের প্রতিবাদ করায় আক্রান্ত হলেন প্রাক্তন সেনাকর্মীর বৃদ্ধ বাবা। তাঁর নাম দীনেশ প্রসাদ। দুষ্কৃতীদের মারের হাত থেকে দীনেশবাবুকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন বৃদ্ধের স্ত্রী ও পুত্রবধূ। এই ঘটনায় অভিযুক্ত রাজেশ সিংহকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে হাওড়ার গোলাবাড়ি থানা এলাকার জেলিয়াপাড়া লেনের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মারধরের গোটা ঘটনাই ধরা পড়েছে সিসিটিভি ক্যামেরায়। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে।

জানা গিয়েছে, হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার জেলিয়াপাড়া লেনে বাড়ির সামনে গুমটি বসিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলছিল দুষ্কৃতীদের আড্ডা। শুক্রবার রাতে একদল দুষ্কৃতী বাড়ির সামনে মদ্যপানের আসর বসায় এবং গালিগালাজ করতে থাকে। এরই প্রতিবাদ করতে গেলে প্রাক্তন সেনাকর্মীর বাবা দীনেশ প্রসাদকে বাড়ির সামনে থেকে টেনে ধরে এনে বেধড়ক মারধর শুরু করে। তিনি মাটিতে পড়ে যান। বাড়ির মহিলারা ছুটে এলে দুষ্কৃতীরা তাদের মারতেও এগিয়ে যায়।

আহত দীনেশবাবুকে প্রথমে হাওড়া জেলা হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয়। এরপর তাকে কম্যান্ড হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। এই ঘটনায় পরিবারের লোকেরা যথেষ্ট আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। গোলাবাড়ি থানায় পুলিশ এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। এই প্রসঙ্গে নিগৃহীত দীনেশ প্রসাদ বলেন, বাড়ির সামনে কমন প্যাসেজ। সেইখানে একটি গুমটি করা হয়েছে। সেই গুমটিতে চলে নেশা। সেখানে দুষ্কৃতীরাদের আড্ডা ছিল। বাড়ির সামনে চলত অশ্লীল ভাষায় কথাবার্তা। এই ব্যাপারে প্রতিবাদ করেছিলাম। সেই কারণে আমাকে মারধর করা হয়। ঘটনায় আমি আতঙ্কিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here