ডেস্ক: খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত ভাঙড়ের বেতাজ বাদশা আরাবুল ইসলাম গ্রেপ্তার হয়েছেন আগেই। দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ থাকার পর অবশেষে গ্রেপ্তার করা হল ভাঙড়ের পাওয়ার গ্রিড বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম মাথা অলীক চক্রবর্তীকে। কলকাতা পুলিশের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে বারুইপুর জেলাপুলিশ।

সূত্রের খবর, ভাঙড়ের পাওয়ার গ্রিড আন্দোলনের অন্যতম নেতা ছিলেন এই অলীক চক্রবর্তী। দীর্ঘ দিন ধরে তাঁর বিরুদ্ধে চলছিল পুলিশি তল্লাশি। এর আগে ভাঙড়ের খামারহাটি ও মাটিভাঙা গ্রামে আত্মগোপন করে ছিল এই অভিযুক্ত। বারে বারে গ্রামে তল্লাশি চালিয়েও মেলেনি তাঁর খোঁজ। তবে এবার নিজের অসুস্থতার কারনে ভুবনেশ্বরে চিকিৎসা করাতে যান অলীক। সেখানেই মোবাইল ফোনের সুত্র ধরে তাঁর খোঁজ পায় পুলিশ। কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে খবর দেওয়া বারুইপুর জেলা পুলিশে। এরপর বৃহস্পতিবার ভুবনেশ্বরে রওনা দেয় পুলিশ সেখান থেকেই গ্রেপ্তার করা হয়। জমি আন্দোলনের এই মূল মাথাকে। অভিযুক্তকে দ্রুত রাজ্যে ফিরিয়ে নিয়ে আসার প্রস্তুতি পর্বশুরু হয়েছে।

যদিও অলীক চক্রবর্তী গ্রেপ্তার হওয়ার পর রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন জমিরক্ষা কমিটি ও তাঁর অন্যতম নেত্রী শর্মিষ্ঠা চৌধুরী। একিসঙ্গে তাঁর নিশর্ত মুক্তিরও দানি করেন তিনি। তিনি বলেন, ‘
সরকারের ধারণা এই গ্রেপ্তারির মধ্য দিয়ে ভাঙড় আন্দোলনের মেরুদন্ড ভেঙে দেওয়া যাবে। অলিক চ%A