নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: মাত্র ১৯০ টাকার মটন বিরিয়ানির জন্য খুন হতে হয়েছিল ভাটপাড়া পুরসভার অন্তর্গত জগদ্দলের রেস্টুরেন্ট মালিক। দিন তিনেক আগে মূল অপরাধী পাকড়াও হলেও বাকিরা ছিল অধরা। অবশেষে বাকি চার অভিযুক্তকেও গ্রেফতার করল পুলিশ।

গত ৩ রা জুন রাতে উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দল থানার অন্তর্গত ভাটপাড়া এলাকায় দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হয়ে ছিলেন প্রসিদ্ধ রেস্টুরেন্টের মালিক সঞ্জয় মন্ডল। তাঁকে দোকানের ভিতরে ঢুকেই গুলি করে খুন করেছিল ৫ জন কুখ্যাত স্থানীয় দুষ্কৃতী। যদিও ঘটনার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই জগদ্দল থানার পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিল মূল অভিযুক্ত ফিরোজ আলম। অভিযোগ, নিজে হাতে গুলি চালিয়েছিল ফিরোজই। সেই খুনের ঘটনায় ফেরার ছিল ফিরোজের দলের বাকি আরও চার সাগরেদ। সেই চার সাগরেদকে অবশেষে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গ্রেফতার করল জগদ্দল থানার পুলিশ। ধৃতদের কলকাতা থেকে মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে পুলিশ গ্রেফতার করে।

পুলিশ সূত্রের খবর, মূল অভিযুক্ত ফিরোজকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে বাকি চার জনের খোঁজ শুরু করে পুলিশ। এরপর বুধবার রাতে কলকাতার ধর্মতলা চত্বর থেকে মহঃ রাজা, মহঃ মঙ্গলি, মহঃ শাহনাজ এবং মহম্মদ সালমানকে পাকড়াও করে পুলিশ। সূত্রের খবর, পুরনো শত্রুতার জেরেই রেস্টুরেন্ট মালিক সঞ্জয় মণ্ডলকে খুন করেছিল ফিরোজ ও তার সঙ্গীরা। বৃহস্পতিবার ধৃতদের বারাকপুর আদালতের মাধ্যমে নিজেদের হেফাজতে নেয় পুলিশ । খুব শীঘ্রই পুলিশ ধৃতদের সঙ্গে নিয়ে সঞ্জয় মন্ডল খুনের ঘটনার পুনঃনির্মাণ করবে বলে জানা গেছে। সঞ্জয় মন্ডল খুনের ঘটনায় যে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিল মৃতের পরিবার, তাদের প্রত্যেককেই অবশেষে হেফাজতে নিল পুলিশ। ঘটনা ঘটার ৪ দিনের মাথায় সব অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে এই খুনের ঘটনার কিনারা করে ফেলল জগদ্দল থানার পুলিশ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here