kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিশ্বের পাশাপাশি করোনায় ঘুম ছুটেছে ভারতেরও। পরিস্থিতি সামাল দিতে টানা 21 দিনের লকডাউন এর পাশাপাশি দেশবাসীর স্বার্থে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে মোদি সরকার। সেই পথেই এবার বিজেপির সমস্ত সাংসদকে সরকারের পাশে এসে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিলেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। জানিয়ে দিলেন, করোনার সঙ্গে লড়তে প্রত্যেক সংসদ এক কোটি টাকা করে দান করবেন কেন্দ্রীয় তহবিলে।

পরিস্থিতি যে ক্রমশই খারাপের দিকে যাচ্ছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সরকার লকডাউন জারি করলেও ক্রমাগত বেড়ে চলেছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার। এমন একটা সময়ে সরকারকে আর্থিক সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে বহু সংস্থার পাশাপাশি ভিভিআইপি, সেলিব্রিটি ও রাজনৈতিক নেতৃত্বরা। রাজ্য সরকারের পাশাপাশি রিলিফ ফান্ড খুলেছে কেন্দ্রও। সেই ফান্ডে ইতিমধ্যেই সাহায্য করেছেন বহু সাংসদ, বিধায়ক ও সাধারণ মানুষ। অনেকে আবার অতটাও গুরুত্ব দেননি বিষয়টিতে। তবে বিপর্যয়ের এমন দিনে এবার নির্দেশনামা চাপিয়ে দিল দল। স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হল, বিজেপির যতজন সাংসদ রয়েছেন প্রত্যেককে এক কোটি টাকা করে দিতে হবে করোনা পরিস্থিতিতে সাহায্যের জন্য। তবে এটাও জানানো হয়েছে, যে টাকা তারা দান করবেন সেটা তাদের ব্যক্তিগত টাকা নয়। নিজের এলাকার উন্নয়নের জন্য যে অর্থ সাংসদরা পেয়ে থাকেন সেখান থেকেই দিতে হবে এই টাকা। শনিবার এই ঘোষণা করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

উল্লেখ্য, এর আগে করোনা যুদ্ধে নেমে নিজের মতো করে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন রাজ্যের 7 বিজেপি সাংসদ। তারমধ্যে ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়, লকেট চট্টোপাধ্যায়, সৌমিত্র খাঁ, জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো, ঝাড়গ্রামের কুনার হেমব্রম, বালুরঘাটের (দক্ষিণ দিনাজপুর) সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। এদের কেউ 50 লক্ষ তো কেউ আবার 80 লক্ষ টাকা পর্যন্ত দান করেছেন ত্রাণ তহবিলে। তবে এবার বাধ্যতামূলকভাবে এক কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হল দলের তরফে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here