ডেস্ক: বল বিকৃতি কেলেঙ্কারিতে ওয়ার্নার যা করেছেন, সেজন তিনিই দায়ী৷ রবিবার এমনই বিস্ফোরক স্বীকারোক্তি করলেন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের নির্বাসিত ক্রিকেটার ডেভিড ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যানডিস ওয়ার্নার ৷ পাশাপাশি জানিয়েছেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় তাঁরা যে ধরনের ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের শিকার হয়েছেন,তা বলার মতো উপহার নয়৷ প্রসঙ্গত, বল বিকৃতি কাণ্ডে একত্রিশ বছরের অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ওয়ার্নারকে ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এত বছরের জন্য নির্বাসিত করেছে সেদেশের ক্রিকেট বোর্ড৷
রবিবার সিডনিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে একত্রিশ বছরের অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ওয়ার্নার কান্নায় ভেঙে পড়ে জানান, তিনি আর অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট টিমের হয়ে খেলতে পারবেন না৷ তারই রেশ টেনে রবিবার সানডে টেলিগ্রাফকে ক্যান্ডিস জানান, তিনি বুঝতে পারছেন সবটাই তাঁর ভুলের জন্য হয়েছে ৷ আর সেই অপরাধবোধ তাঁকে সবসময়ই কুরে কুরে খাচ্ছে ৷ ভীষণভাবে আঘাত করে চলেছে৷

প্রসঙ্গত, বল বিকৃতি কেলেঙ্কারির আগেই ঝামেলায় জড়িয়েছিলেন ওয়ার্নার৷ ম্যাচ চলাকালীন তিনি এবং কুইন্টন ডে কক ঝামেলায় জড়ান৷ তারপর তাকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ আফ্রিকার সমর্থকরা ক্যান্ডিসকে অপমান করে৷ দ্বিতীয় টেস্ট চলাকালীন রাগবি খেলোয়াড় সোনি বিল উইলিয়মসের মুখোশ পরা তিন জন দক্ষিণ আফ্রিকার সমর্থকের সঙ্গে দুজন সেদেশের প্রবীণ ক্রিকেট কর্তার ছবি তোলা হয়৷ ২০০৭ সালে ওয়ার্নারের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হওয়ার আগে সোনি উইলিয়ামসের সঙ্গে ক্যান্ডিসের সম্পর্ক নিয়ে খোঁচা দিতেই সোনির মুখোশ পরেছিল দর্শকরা৷ এতে তীব্র অপমানিত হন ওয়ার্নারের স্ত্রী ৷ তাঁকে দেখে ওই মুখোশ পরা দর্শকরা হাসাহাসি,বিদ্রুপ করছিল,যা দেখে লজ্জায় মাথা হেঁট হয়ে গিয়েছিল তাঁর ৷ স্রেফ তাঁকে দেখানোর জন্যই তারা উইলিয়মসের মুখোশ পরেছিল বলেই জানিয়েছেন ক্যান্ডিস ৷

ওয়ার্নারের স্ত্রী অবশ্য সানডে টেলিগ্রাফকে জানিয়েছেন, তিনি ওয়ার্নারকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য এমন কথা বলছেন না ৷ তাঁর স্বামী যেমনভাবে ছেলেমেয়েদের আড়াল করেন, তেমনই তাঁকে বাঁচিয়ে গিয়েছেন ৷ ডেভ ফিরে এসে বাথরুমে ক্যান্ডিসকে অঝোরে কাঁদতে দেখেছিলেন৷ বাচ্চারাও তাঁকে দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিল৷ ব্যাপারটা খুবই হৃদয়বিদারক ছিল৷ তিনি জানিয়েছিলেন, তাঁরা যখন কেপ টাউন এবং পোর্ট এলিজাবেথে ছিলেন,তখন ওয়ার্নার মাঠ থেকে হোটেলে আসতেন৷ তখন তিনি বেশ সাহস করেই ঘুরে বেড়াতেন এবং ম্যাচ দেখতে যেতেন৷ কিন্তু মাঠে মুখোশ পরা সমর্থকদের দেখে তিনি পুলিশ যেখানে বসতো, সেখানে গিয়ে বসতেন৷…. ক্যান্ডিস দেশের সমর্থকদের ধৈর্য ধরতে বলেন এবং জানান, ওয়ার্নার বিরুদ্ধ পরিস্থিতিতে লড়াই চালাচ্ছেন৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here