kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিধাননগর: ভ্রমণপিপাসু বাঙালির জন্য পুজোর আগে সুখবর শোনালেন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। আনলক পর্বে খুলে যাচ্ছে চিড়িয়াখানা এবং রাজ্যের বনদফতরের আওতাধীন সমস্ত জাতীয় উদ্যান এবং জঙ্গল সাফারি। ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জাতীয় উদ্যান এবং ২ অক্টোবর থেকে কলকাতা-সহ রাজ্যের ১২টি চিড়িয়াখানা ভ্রমণার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে।

করোনা আবহের জন্য ১৭ মার্চ থেকে বনদফতরের আওতাধীন রাজ্যের সমস্ত জাতীয় উদ্যান, পার্ক ও চিড়িয়াখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এতে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিলেন ভ্রমণ ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত লোকজন। রাজস্ব আদায় কমেছিল বনবিভাগেরও। সামনেই পুজোর মরসুম। এই সময় বাঙালিরা ঘুরতে ভালবাসে। তাদের কথাই ভেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, করোনা আবহে বনদফতরের কর্মীদের রোজনামচা বদলে গিয়েছে। তাদের পিপিই এবং মাস্ক পরে সমস্ত কাজকর্ম সামলাতে হচ্ছে। জাতীয় উদ্যান এবং চিড়িয়াখানাগুলি খুলে দেওয়া হলে ভ্রমণার্থীদের অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। স্যানিটাইজ করতে হবে শরীরের বিভিন্ন অংশ। গায়ে জ্বর থাকলে কোনওভাবেই চিড়িয়াখানা কিংবা জাতীয় উদ্যানে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। ট্রেকিংয়ের ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট। ১০ বছরের নীচে এবং ৬৫ বছরের ঊর্ধ্বে যারা জাতীয় উদ্যান এবং চিড়িয়াখানায় আসবেন, তাদের কোভিড প্রোটোকল মেনে চিড়িয়াখানায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here