ডেস্ক: জঙ্গি কার্যকলাপে যুক্ত সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলির বিরুদ্ধে পাকিস্তানকে কড়া পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ আমেরিকার। বিগত কয়েক মাস ধরেই এই ইস্যুতে লাগাতার ইসলামাবাদকে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে চাপে রাখার কৌশল নিয়েছে হোয়াইট হাউস। এদিন সেই সুর আরও একটু চড়িয়ে ফেলল মার্কিন প্রশাসন।

মার্কিন বিদেশ মন্ত্রকের ডেপুটি মুখপাত্র জানিয়েছেন, পাকিস্তানের জমিতে বাড়তে থাকা জঙ্গি সংগঠনগুলিকে সরকারি সহায়তা বন্ধ করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সন্ত্রাসবাদে লাগাম টানতে জঙ্গিদের সুরক্ষা ও আর্থিক সাহায্যও বন্ধ করার নির্দেশিকা দিয়েছে আমেরিকা। পাকিস্তানের বিভিন্ন অংশ ও উপমহাদেশের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার স্বার্থে নতুন করে মার্কিন সরকার এই নির্দেশ দিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। একই সঙ্গে জঙ্গিরা যাতে কোনও ভাবেই আর্থিক সাহায্য না পায় তা সুনিশ্চিত করার জন্যও পরোক্ষে চাপ দেওয়া হয়েছে ইমরান খানকে। বিগত কয়েকদিন যাবত পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া শুরু করলেও আগামী দিনে হামলা আটকাতে আরও কড়া পদক্ষেপ নিতে হবে বলে মনে করছে আমেরিকা।

 

এছাড়াও জানা যাচ্ছে, পাকিস্তানের মাটিতে ২২টি জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির সক্রিয় রয়েছে যার মধ্যে পুলওয়ামা কাণ্ডে দায়ী জইশ-ই-মহম্মদের শিবিরই ৯টি। কিন্তু একটি শিবিরের বিরুদ্ধেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এক শীর্ষ স্থানীয় ভারতীয় আধিকারিককে উল্লেখ করে এমনটাই জানিয়েছেন সংবাদ সংস্থা পিটিআই। ওই আধিকারিকই হুমকি দিয়ে বলেছেন, জঙ্গিদের সহায়তা বন্ধ না করলে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের মতো আরও হামলা ভবিষ্যতে চালাবে ভারতীয় বায়ুসেনা। তাঁর আরও বক্তব্য, বিশ্বজুড়ে সন্ত্রাসবাদের ভরকেন্দ্রই পাকিস্তান। অথচ সেই সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে উলটে যুদ্ধের আবহত তৈরি করে পাকিস্তান।

এদিনের নয়া হুঁশিয়ারিতে আমেরিকার বিদেশ দফতরের মুখপাত্র পাকিস্তানকে মনে করিয়ে দেন, রাষ্ট্রসঙ্ঘকে দেওয়া প্রতিশ্রতি পাকিস্তানকে পালন করতে হবে। একই সঙ্গে নিরাপত্তা পরিষদের জঙ্গিতালিকাও যেন নিখুঁত করা হয় সেই চাপ দিয়েছে আমেরিকা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here