news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: স্পনসরহীনতা, আর্থিক সমস্যা দিনের আলোর মতোই স্পষ্ট ইস্টবেঙ্গলে। কিন্তু এসবের মাঝেই শতবর্ষ পালন করা লাল-হলুদ ক্লাব আগামী মরসুমের জন্য আরও তিন ফুটবলারকে সই করিয়ে নিল। সরকারি বিবৃতি মারফত জানিয়ে দিল ইস্টবেঙ্গল।

লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ক্লাবে ফিরছেন প্রাক্তন যোদ্ধারা। দীর্ঘদিন কথাবার্তার পর অবশেষে শেহনাজ সিং, বিকাশ জাইরু ও কেভিন লোবোর সঙ্গে চুক্তি করে ফেলল ইস্টবেঙ্গল। এটিকের জার্সিতে গত মরসুমে খেলেছেন শেহনাজ সিং, বিকাশ জাইরুর ফ্র্যাঞ্চাইজি ছিল জামশেদপুর এফসি। কেভিন লোবো আসছেন পঞ্জাব এফসি থেকে।

২৬ বছরের শেহনাজ চার বছর পরে ফিরলেন ইস্টবেঙ্গলে। এটিকের জার্সিতে শেষ মরশুমে আটটি ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। দেশের জার্সিতে ২০১৫ সালে ওমানের বিরুদ্ধে অভিষেক করার পর সুনীল ছেত্রীদের সঙ্গে আরও চারটি ম্যাচ খেলেন তিনি। ২০১৪-১৫ মরশুমে মোহনবাগানকে আই-লিগ চ্যাম্পিয়ন করানোর অন্যতম বড় অবদান ছিল এই স্টার মিডফিল্ডারের। অন্যদিকে জাইরু দেশের হয়ে সাতটি আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলেছেন। ২০১৫-২০১৭ পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলে ছিলেন। তাঁর চোখ ধাঁধানো উইং-প্লে ছিল। লাল-হলুদের ঘরের ছেলে হয়ে গিয়েছিলেন লোবো। এটিকের হয়ে লোনে গিয়েছিলেন মিনার্ভা পাঞ্জাবে। সেখানে ১৫টি ম্যাচ খেলেন তিনি। দেশের হয়েও লোবো ১৫টি ম্যাচ খেলেছেন।

কোয়েসের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের সম্পর্ক শেষ হওয়া এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। কোয়েস করোনা জনিত জরুরি পরিস্থিতির কারণ দর্শিয়ে এক মাস আগেই প্লেয়ারদের চুক্তি শেষ করছে। আইনি ভাষায় এই প্রক্রিয়াকে বলা হয় ‘ফোর্স ম্যাজা’। অর্থাৎ যেখানে কোনও সংস্থা অচিন্তিতপূর্ব পরিস্থিতির জন্য চুক্তি ভঙ্গ করতে পারে। বিষয়টা লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ক্লাব মন থেকে মেনে নিতে না-পারলেও তাদের কোনও হাত নেই এখানে। কোয়েসের কথাই চূড়ান্ত। কোয়েস কর্তা সঞ্জিত সেন নাকি ইমেলের মাধ্যমে ফুটবলারদের জানিয়েও দিয়েছেন যে তাঁরা মে মাসের বেতন পাবেন না। কোয়েসের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গল ফুটবলারদের যা রয়েছে তাতে করে এই মে মাসের শেষ পর্যন্ত ফুটবলারদের বেতন দেওয়ার কথা কোয়েসের। এমনটাই দাবি লাল-হলুদ কর্তাদের।

লকডাউনের মাঝে ইস্টবেঙ্গল কিন্তু ঘর গোছানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। মোহনবাগান থেকে শঙ্কর রায়, এটিকে থেকে বলবন্ত সিং ও রিয়াল কাশ্মীর থেকে নবীন গুরুংকে সই করিয়েছে তারা। ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইরানিয়ান স্টাইকার ওমিদ সিংও খেলবেন লাল-হলুদে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here