news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস সংক্রমণও সীমান্তের উদ্বেগে ঘাটতি করতে পারেনি। ভারত পাকিস্তান জম্মু কাশ্মীর সীমান্ত নিয়ে যেমন উদ্বেগ, তেমনি লাদাখ সীমান্ত নিয়ে ভারত এবং চিনের মধ্যে বাড়ছে উত্তেজনা। সমগ্র পরিস্থিতি নিয়ে আজ থেকে শুরু হল সেনাবাহিনীর বৈঠক, চলবে তিন দিন।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর শীর্ষ আধিকারিকদের নিয়ে এই বৈঠকের নেতৃত্ব দেবেন সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে। জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ সীমান্ত নিয়ে বাড়তে থাকা উত্তেজনা নিয়েই মূলত এই বৈঠক ভারতীয় সেনাবাহিনীর। অন্যদিকে, ইতিমধ্যেই নিজের দেশের সেনাবাহিনীকে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে বলে দিয়েছেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সার্বিকভাবে দুই দেশের সামরিক পরিস্থিতি উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে তা স্পষ্ট।

কমপক্ষে দুই সপ্তাহ ধরে লাদাখ এবং উত্তর সিকিম সীমান্তে চীন এবং ভারতীয় সেনার মধ্যে আকাঙ্ক্ষিত দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় দুবার হাতাহাতি পর্যন্ত হয়ে গিয়েছে দুই সেনার মধ্যে। উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ার এতদিন পরেও পরিস্থিতি ইতিবাচক হওয়ার কোন লক্ষণ দেখা দেয়নি, উল্টে এখন চিনা প্রেসিডেন্টের সেনাবাহিনীকে উদ্দেশ্য করেই মন্তব্য পরিস্থিতির গভীরতা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

লাদাখ এবং উত্তর সিকিম সীমান্ত তো ছিলই, একইসঙ্গে চিন নেপাল নিয়েও ভারতের বিরুদ্ধে উস্কানি ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিল কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রক। তাদের দাবি ছিল, ভারতের বিরুদ্ধে নেপালকে উস্কানি দিয়ে সংঘাতের চেষ্টা করছে চিন। ইতিমধ্যেই ভারতের কিছু অংশ নেপাল তাদের বলে দাবি করেছে। একইভাবে সিকিমের অংশে নজর পড়েছে চিনের। সব মিলিয়ে সীমান্ত পরিস্থিতি সামলাতে এখন চূড়ান্ত ব্যস্ত ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং কেন্দ্রীয় সরকার। চিনের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে যে কেন্দ্রীয় সরকার কোন দ্বিধাবোধ করবে না তা স্পষ্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here