kolkata bengali news

ডেস্ক: আলিপুরদুয়ারের বিজেপি প্রার্থী জন বার্লার সমর্থনে লোকসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত সাহ৷ মঞ্চে উঠেই তাঁর আক্রমণের নিশানায় ছিল বাংলার মাটিতে তাঁদের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল কংগ্রেস৷ তবে এদিন তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণ শানাতে গিয়ে তাদের আরেক বিরোধী বামেদের প্রশংসা করে বসলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি৷ যে বামেরা অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাওয়ার পরেও  তৃণমূল ও বিজেপিকে ঠেকাতে এখনও সবরকম চেষ্টা চালাতে মরিয়া, তৃণমূল ও বিজেপি একই খেলা খেলছে বলে বারে বারে তোপ দেগেছে যারা  মমতাকে দুষতে গিয়ে সেই বামেদের সম্পর্কে প্রশংসাবাণী ঝরে পড়ল অমিত শাহের গলায়৷রাজবাসীকে মনে করিয়ে তিনি বললেন, দিদির বাংলা নাকি বামেদের থেকেও খারাপ৷

বললেন তৃণমূল রাজ্যে যা দুর্নীতি শুরু করেছে তাঁর থেকে কমিউনিষ্টরা ভালো ছিল৷ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধীয় এদিন মুখ ফসকে বামকে সমর্থন করে ফেলেছেন ঠিকই তবে এদিন অমিত শাহের আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দুতে প্রথম থেকেই ছিল তৃণমূল৷ তৃণমূল বাংলার গর্বকে ম্লান করেছে, গণতন্ত্রের হত্যা করেছে বলে আক্রমণ শানালেন অমিত শাহ৷ তৃণমূল বিরোধী সুর চড়িয়ে তাঁর উক্তি, দেশের সুরক্ষা ও বিকাশের জন্য তৃণমূল সরকারকে হারাতে হবে৷ এদিন বাংলায় পরিবর্তন আনতে হলে বাড়াতে হবে গলার জোর, আলিপুরদুয়ারবাসীকে প্রচারের মঞ্চ থেকে এদিন এভাবেই উজ্জীবিত করেন তিনি৷ এদিন বিরোধীদের জোট বন্ধনকে লোক ঠকানোর জোট বলে কটাক্ষ করেন অমিতজি৷ মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানায় রেখে তিনি বলেন, রাজ্যে যে কোনও কাজ করতে গেলে তৃণমূলকে টোলট্যাক্স দিতে হবে৷ তৃণমূল খোদ টোলট্যাক্স হয়ে গেছে বলে কটাক্ষ করেন তিনি৷

 

এদিন দাঁড়িভিট প্রসঙ্গ টেনেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে একইভাবে দুষে গেলেন অমিত শাহ৷ দাঁড়িভিট কাণ্ডে যে দুই পড়ুয়ার প্রাণ গিয়েছিল সেই রাজেশ ও তাপস বর্মনের মৃত্যুর জন্য তৃণমূলের গুণ্ডামিকেই দায়ি করেন অমিত শাহ৷ তিনি বলেন কি দোষ ছিল রাজেশ ও তাপসের যে তৃণমূলের পুলিশ ওদের গুলি করে খুন করল৷ মুখ্যমন্ত্রী যিনি সবসময় বাংলার সংস্কৃতির কথা বলেন তিনি কিনা উর্দু ভাষার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন৷ দাঁড়িভিটে প্রয়োজন না থাকা সত্ত্বেও উর্দুর শিক্ষক এনে দাঙ্গা লাগিয়ে দিলেন৷ যার ফলে প্রাণ গেল রাজেশ ও তাপসের৷ এদিন অমিত শাহের তৃণমূল বিরোধীতায় উঠে এসেছে পঞ্চায়েত ভোটের প্রসঙ্গও৷ রাজ্যের ৩৩ শতাংশ মানুষকে ভোট দিতে দেয়নি তৃণমূল, গণতন্ত্রের গলা টিপে মেরেছেন দিদি, অভিযোগের সুর চড়িয়ে বলেন সে কথাও৷ এদিন রথযাত্রা থেকে হেলিকপ্টার বিতর্ক, বারে বারে বিজেপির সভা আটকে দেওয়া, ভোটের প্রচারে এসে একের এক তৃণমূলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হলেন অমিত শাহ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here