ডেস্ক: ২০১৯-এর লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে যেভাবে আঞ্চলিক দলগুলির সঙ্গে একে একে জোটবদ্ধ হচ্ছে বিরোধীরা, তাতে মোদী অমিত জুটি যে বেশ চাপেই রয়েছেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এদিকে নিজের ঘরের ফাটলও দিনে দিনে বেশ চওড়া হয়ে উঠছিল। জোট ছেড়ে বিরোধী শিবিরের দিকে পা টা বেশ বাড়িয়ে রেখেছিল বেশ কয়েকটি এনডিএ শরিক। বিপদ যে অবশ্যম্ভাবী তা বুঝতে পেরেই তড়িঘড়ি ঘর গোছাতে নেমেছেন বিজেপির দলের কম্যান্ডর অমিত শাহ। বুধবারি তিনি গিয়েছিলেন শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের মান ভঞ্জন করতে। আর সেই মানভঞ্জন তিনি সাফল্যের সঙ্গেই করেছেন বলে জানা যাচ্ছে সুত্র মারফৎ।

বুধবার রাত ৮ টা নাগাদ শিবসেনা প্রধানের বাসভবন মাতোশ্রীতে গিয়েছিলেন অমিত শাহ। সেখানে রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয় উদ্ধব ঠাকরের। বৈঠক ইতিবাচক হয়েছে বলেই দাবি দুই দলের। জানা যাচ্ছে, মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণ, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারে শিবসেনার যোগদান ও লোকসভা ভোটে আসন ভাগ নিয়ে তাঁদের মধ্যে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে আর সেখানে শিবসেনা তাঁদের অভিমান কাটিয়ে বিজেপির সঙ্গ দিতে প্রস্তুত। এদিনের এই বৈঠকে উদ্ধব ঠাকরে ছাড়াও উপস্তিত ছিলেন উদ্ধবের ছেলে আদিত্য ও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ। আগামী কয়েকদিনে তাঁদের মধ্যে আরও কয়েকটি বৈঠক হবে বলে জানা গিয়েছে।

এই বৈঠকের পরই সংবাদ মাধ্যমের সামনে অমিত শাহের দাবি, ‘শিবসেনার মধ্যে যা কিছু অসন্তোষ আছে তার সবটাই দূর করা হবে। ২০১৯ সাল শুধু নয় ২০২৪ সালেও একসাথে হাতে হাত মিলিয়ে লড়বে শিবসেনা। বিরোধীরা যতই জোট বাধুক, কিছুই আসে যায় না তাতে।’

উল্লেখ্য, এনডিএর সবচেয়ে পুরানো শরিক এই শিবসেনা। একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে লোকসভায় বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর শরিক দলগুলির সঙ্গে বৈমাত্রি সুলভ আচরনের অভিযোগ তুলেছিল এনডিএর শরিকরা। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে যায় যে ইতিমধ্যেই এনডিএর সঙ্গ ছেড়েছে চন্দ্রবাবু নাইডুর দল টিডিপি। অভিমানী শিবসেনা পালঘর বিধানসভা ভোটে বিজেপি বিরুদ্ধে লড়াই করেছে, এমনকী লোকসভা ভোটে আলাদা লড়বে বলেও হুমকি দিয়েছিল তাঁরা। এদিকে বিহারেও নীতীশের দল জেডিইউও এনডিএ বিরোধীতায় নেমেছে। সবমিলিয়ে বিজেপির আকাশে যে সিঁদুরে মেঘ জমেছে তা বুঝেই ঘর বাঁচাতে উঠে পড়ে লেগেছে মোদী-শাহ জুটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here