kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: দিন কুড়ি আগে সৌরভ গাঙ্গুলি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে তাঁকে ঘিরে ব্যাপক তৎপরতা দেখা যায় রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে। বিশেষ করে বিজেপি শিবিরের নেতারা নিয়মিত তাঁর স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর রাখছিলেন। শুধু রাজ্য নেতা নন, কেন্দ্রের বড় বড় নেতারাও তাঁর খবর রাখছিলেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাজ্য নেতাদের কাছ থেকে নিয়মিত খবর নিয়েছিলেন সৌরভের স্বাস্থ্যের। প্রয়োজনে তাঁকে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে করে উড়িয়ে দিল্লি নিয়ে যাওয়ার ভাবনাচিন্তাও করেছিলেন দিল্লির নেতারা। কিন্তু তার আর প্রয়োজন হয়নি। কয়েকদিন হাসপাতালে চিকিৎসার পর তাঁর হার্টে স্টেন্ট বসানোর পর তিনি ছুটি পান। তারপর থেকে বাড়িতেই ছিলেন সৌরভ। আচমকা গতকাল থেকে আবার তাঁর শারীরিক অসুস্থতা শুরু হয়। আজ আবার বুকে ব্যথা হলে সময় ব্যয় না করে দ্রুত তাঁকে নিয়ে আসা হয় কলকাতার অ্যাপোলো হাসপাতালে।

​সৌরভের অসুস্থ হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই বিভিন্ন মহলে আবার উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে। রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে আবারও তৎপরতা শুরু হয়ে যায় তাঁর স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য। সৌরভ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তাঁর শারীরিক অবস্থা কেমন আছে, তা জানতে চেয়ে পশ্চিমবঙ্গে নিযুক্ত বিজেপি’র কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে ফোন করেন অমিত শাহ।  সৌরভের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সমস্ত কিছু জানতে চান তিনি। শুধু তাই নয়, বিজয়বর্গীয়কে নির্দেশ দেন সমস্ত দিকে নজর রাখতে এবং সেই মতো তাঁকে সব কিছু জানাতে।

এ প্রসঙ্গে কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছেন, সৌরভ হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর অমিতজি আমাকে ফোন করে তাঁর স্বাস্থ্য সম্পর্কে জানতে চান। অমিতজি বলেন প্রয়োজনে তিনি নিজের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলবেন। আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলিকে দিল্লি বা মুম্বই নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন আছে কিনা, সে সম্পর্কে তিনি চিকিৎসকদের কাছে জানতে চাইবেন।

​এদিকে, অ্যাপোলো হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, চিকিৎসক আফতাব খানের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছেন সৌরভ গাঙ্গুলি। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর তাঁর প্রয়োজনীয় সব শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here