international news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: তাকে রোখার মতো কোনও শক্তি এখনও আবির্ভূত হয়নি মর্তে। হয়ত বা আছে। তবে তা এখনও মানুষের জ্ঞান চক্ষুর আড়ালে। ফলে পরমাণু শক্তিধর বিশ্বের সবচেয়ে বুদ্ধিমান প্রাণীকূল আজ নিরস্ত্র। এদিকে বিশ্বজয়ের নেশায় অন্ধ হয়ে একের পর এক শক্তিশালী দেশকে কাবু করে ফেলেছে অদৃশ্য করোনা ভাইরাস। সারা বিশ্বে তার হানাদারিতে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৯ হাজার মানুষের। এহেন পরিস্থিতিতে ‘বিশ্বাসে মিলায় বস্তু’ এই মন্ত্রেই আস্থা বেড়েছে মনুষ্য প্রজাতির। কোথাও মসজিদের দেওয়াল চাটছে মানুষ। তো কোথাও আবার নাক টিপে গ্লাসের পর গ্লাস গোমূত্র ঢালা হচ্ছে গলায়। এমন পরিস্থিতির মাঝেই এবার ন্যাদারল্যান্ডের আমস্টারডাম খুঁজে নিল অন্য রাস্তা। গোমূত্র বা মসজিদের দেওয়াল নয়, করোনাকে দূরে সরাতে গাঁজাকেই ভালবেসে আপন করে নিল এখানকার মানুষ।

করোনার মারণ সংক্রমণ থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক ব্যবহারে জোর দিতে বলা হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর তরফে। এছাড়াও রাস্তাঘাটে বা লোকজনের সংস্পর্শে এলে কীভাবে নিজেককে সুরক্ষিত রাখা যায় সে বিষয়ে দেওয়া হয়েছে বার্তা। তবে ‘হু’-র বার্তা ফুৎকারে উড়িয়ে গাঁজাতেই স্বস্তি ও শান্তি দুইই খুঁজছে আমস্টারডাম। তথ্য বলছে, এখানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিক্রির দোকানে ভিড় তুলনামূলক ভাবে খুবই কম। অন্যসব দোকানের তুলনায় গাঁজার দোকানেই উপচে পড়েছে ভিড়। এখানকার কফিশপগুলিতে অবাধে বিক্রি হচ্ছে গাঁজা।

তথ্য বলছে, গত সপ্তাহেই করোনা ভাইরাসের জেরে এখানকার সমস্ত দোকানপাঠ বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল সরকার। তবে গ্রাহকের চাপে মাত্র ২ দিনে গাঁজার দোকান থেকে সে নির্দেশিকা তুলে নিতে বাধ্য হয় সরকার। তবে দ্রুত প্রয়োজনীয় জিনিস কিনে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফে। আগামী ৬ এপ্রিল পর্যন্ত আমস্টারডামে চলবে ‘লকডাউন’। এদিকে যেভাবে করোনা ছড়াতে শুরু করেছে ন্যাদারল্যান্ডে, তাতে রীতিমতো আতঙ্কিত মানুষ। পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে তাই গঞ্জিকা সেবনেই সুখ খুঁজছে সেখানকার মানুষ। তাতে করোনা রুখবে কিনা জানা নেই, তবে নেশায় ঘোরে ভয় ভীতি থেকে যে অনেক দূরে থাকা যাচ্ছে তা অস্বীকার করছেন না আমস্টারডামের মানুষজন। অনেকের তো আবার দাবি, গাঁজার গুনের কথা বলে শেষ করা যায় না। তার মধ্য থেকে হয়ত করোনাও রুখে দিতে পারে এই বহুমূল্য ভেষজ উপাদানটি।

কিন্তু আমস্টারডামের মানুষ গাঁজার দিকে যতই মনোনিবেশ করুক না কেন, করোনার জেরে পরিস্থিতি কিন্তু ক্রমশ খারাপ দিকে যাচ্ছে ন্যাদারল্যান্ডে। শেষ পাওয়া খবরে এখনও পর্যন্ত এই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১৩৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here