ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত ‘সুপার থার্টি’-র আনন্দ কুমার! জানালেন জীবনের কথা

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গণিতজ্ঞবীদ আনন্দ কুমারের জীবনীকে বড়পর্দায় তুলে ধরছেন হৃত্বিক রোশন। আনন্দের জীবনের ছোট বড় সব কাহিনি দেখানো হবে ‘সুপার থার্টি’-তে। আর মাত্র কয়েকঘন্টার অপেক্ষা, তার আগেই আনন্দ নিজের জীবনের কঠিন সময়ের কথা তুলে ধরলেন। আনন্দ জানান, জীবিত অবস্থায় আমি আমার জীবনের সবথেকে বড় ছবি দেখে যেতে চাই। তাই নির্মাতাদের বলেছিলাম ছবিটা তাড়াতাড়ি বানাতে। কিন্তু কেন হঠাৎ তিনি এমন মন্তব্য করলেন? তিনি বলেন, অ্যাকাউস্টিক নিউরোমায় আক্রান্ত অর্থাৎ তাঁর কান থেকে যে স্নায়ু মস্তিষ্ক পর্যন্ত গিয়েছে আছে তাতে টিউমার ধরা পড়েছে। তাই, জীবিত থাকাকালীন তিনি ‘সুপার থার্টি’ দেখে যেতে চান।

এক সাক্ষাতকারে আনন্দ জানান, ২০১৪-তে হঠাৎই তিনি তাঁর ডান কানে কিছু শুনতে পারছিলেন না। এর জন্য তিনি পাটনায় চিকিৎসা করান। টেস্ট করার জানতে পারেন ডান কানের ৮০-৯০ শতাংশ শোনার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছেন। এরপর তিনি দিল্লির রাম লোহিয়া হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসেন। ডাক্তাররা কিছু টেস্ট করেন। এরপর তারা আমায় জানান, তোমার কানে কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু কান থেকে যে স্নায়ু মস্তিষ্ক পর্যন্ত গিয়েছে সেখানে টিউমার রয়েছে। এই কথাটা শোনার পর কিছুক্ষণ একেবারে চুপ ছিলেন আনন্দ। বুঝতে পারছিলেন না কী করবেন।। এখন তিনি মুম্বইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের নিউরোসার্জেন ডঃ বিকে মিশ্রার অধীন আছেন।

কুমার আরও জানান, তিনি চেয়েছিলেন যতদিন তিনি বেচে থাকবেন তাঁর জীবনের যাত্রা যেন তৈরি হয়ে থাকে। অর্থাৎ ‘সুপার থার্টি’ যেন মুক্তি পেয়ে যায়। ১৩ বার ছবির স্ক্রিপ্ট পড়েছিলেন আনন্দ। হৃত্বিক স্যার ১৫০ ঘন্টার একটি ভিডিও বানিয়ে ছিলেন। যেখানে আমার রোজকারের জীবনযাপন এবং পাটনায় আমায় যাত্রা, লোকেদের সঙ্গে কীভাবে কথা বলি সমস্ত কিছুই তিনি লক্ষ করেছেন। সবথেকে ভালো লাগার বিষয় হল, তিনি একেবারে আমায় চরিত্রে নিজেকে গুছিয়ে ফেলেছেন। তিনি একজন বড়মাপের অভিনেতা। হৃত্বিক ছাড়া তাঁর চরিত্র কেউ পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে পারবে না বলে মত আনন্দ কুমারের।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here