abdullah_azam_jaya_prada

ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের এবার লোকসভা ভোটের জনপ্রিয় স্লোগান- ‘ওরা আলিকে বিশ্বাস করে৷ আমাদের বিশ্বাস বজরংবলিতে৷’ সেই স্লোগানকে ধার করলেন আজম খান পুত্র আবদুল্লা৷ তাঁর কথায়, আমরা আলি ও বজরংবলি দুই চাই। তবে ‘আনারকলিকে’ চাই না৷

ইঙ্গিত স্পষ্ট৷ আনারকলি বলতে সদ্য সপা থেকে বিজেপিতে যাওয়া জয়া প্রদাকেই উদ্দেশ্য করে বলেছেন তিনি৷ এর প্রতিক্রয়ায় রামপুরের সাংসদ জয়া প্রদা সাফ জানান, ‘বাবা কুকথা বলে জানতাম, ভেবেছিলাম ছেলেটার পেটে বিদ্যে আছে৷ ভুলে গিয়েছিলাম ও আজম খানের ছেলে তাই মেয়েদর সম্মান করা ওঁকে শেখায়নি ওর পরিবার৷’ নির্বাচন কমিশনারের কাছে তিনি আবদুল্লার বিরুদ্ধে নালিশ করবেন৷ তাঁর দাবি, ‘বাবার মতো ছেলেরও কুকথা বলার জন্য শাস্তি পাওয়া উচিত’৷

জয়াপ্রদাকে নিয়ে কুকথা বললেন আজমপুত্র আবদুল্লা৷ দীর্ঘদিন সপা সাংসদ ছিলেন বলিউডের এককালের নায়িকা জয়া প্রদা৷ এখন দলবদল করে তিনি বিজেপিতে৷ রামপুরের এই সাংসদ ফের তাঁর চেনা জায়গায় প্রার্থী হয়েছেন৷ সমাজবাদী পার্টি(সপা)-তে জয়াকে নিয়ে এসেছিলেন সপা নেতা আজম খান৷ তাঁকে রামপুরের সাংসদও করেছিলেন তিনি৷ আবার তাঁর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় সপা ত্যাগ করেছিলেন দক্ষিণের এই ডাকসাইটের নায়িকা৷

জয়া বিজেপিতে যোগ দেওয়া ইস্তক আজম খান তাঁর বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করতে শুরু করেছিলেন৷ তিনি জয়ার অন্তর্বাস থেকে শুরু করে তাঁকে ‘নাচনেওয়ালি’ পর্যন্ত বলে নির্বাচন কমিশনের রোষের মুখে পড়েছিলেন৷ তাঁর ভাগ্যে জুটেছিল দু’দিন ভাষণ না দেওয়ার শাস্তি৷ আজমের আক্ষেপ, রামপুরের রাস্তাঘাট কিছুই চিনতেন না জয়া প্রদা৷ আমি তাঁকে হাতে ধরে সব কিছু চিনিয়েছি৷ অন্যদিকে আজমের বিরুদ্ধে মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ করে সপা ছেড়েছেন জয়া৷

প্রসঙ্গত, আনারকলি ছিলেন আকবরের সভায় নর্তকী৷ যার প্রেমে পড়েছিলেন আকবরপুত্র সেলিম৷ এই নিয়ে ‘মুঘল এ আজম’ সিনেমাও হয়েছিল৷ সেই আনারকলিই এখন এসে পড়েছেন লোকসভা ভোটের ময়দানে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here