Parul

মহানগর ওয়েবডেস্ক : সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা কে কে সিং–এর মামলার ভিত্তিতেই আর্থিক তছরুপের ঘটনার তদন্ত করছে ইডি। কিছুদিন ধরেই রিয়া চক্রবর্তীকে টানা জিজ্ঞাসাবাদ করছে এই তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু গতকাল বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যমে জানা যায় রিয়া নাকি ইডি’র আধিকারিকদের বলেছেন সুশান্ত সিং রাজপুত তার প্রাক্তন প্রেমিকা অঙ্কিতার ফ্ল্যাটের ইএমআই দিতেন।

ads

এই খবরে তোলপাড় শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়াতে। ঘটনার গুরুত্ব বুঝেই আসরে নামেন অঙ্কিতা। আষাঢ়ে গল্পে জল ঢেলে দিয়ে বেশ কিছু প্রমাণ দেন। তিনি টুইট করে জানান, ‘এখানেই সব জল্পনা শেষ হোক। আমি ততটাই স্বচ্ছ হওয়ার চেষ্টা করলাম, যতটা হওয়া সম্ভবপর। আমার ফ্ল্যাটের রেজিস্ট্রেশন এবং আমার ব্যাঙ্কের স্টেটমেন্ট। ১ জানুয়ারি ২০১৯ থেকে ১ মার্চ ২০২০ পর্যন্ত। যেখানে হাইলাইট করা রয়েছে, যে আমার ফ্ল্যাটের ইএমআইয়ের টাকা আমার অ্যাকাউন্টের থেকেই প্রতিমাসে কাটা হয়েছে। এর থেকে বেশি আমার কিছু বলবার নেই। #justiceforssr’।

অঙ্কিতা টুইটারে সমস্ত প্রমাণ দিয়েছেন। তার নিজের ফ্ল্যাটের রেজিস্ট্রেশন, স্ট্যাম্প ডিউটি সবটাই তুলে ধরেছেন তিনি। যেখানে স্পষ্টই দেখা যাচ্ছে ২০১৩ সালের মে মাসে ১ কোটি ৩৫ লক্ষ টাকায় মালাডের একটি আবাসনে চারতলায় ফ্ল্যাট কেনেন অঙ্কিতা। যার জন্য ওই বছরেই অঙ্কিতা ৬.৭৫ লক্ষ টাকার স্ট্যাম্প ডিউটিও ভরেছিলেন।
মূল ঘটনা হল, ওই একই আবাসনে একই ফ্লোরে অঙ্কিতার পাশেই ফ্ল্যাট কিনেছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত। যার লোন বা ইএমআই সবটাই সুশান্তের ব্যাঙ্ক থেকে কাটা হত।

সুশান্ত ২০১৩ সালে ওই ফ্ল্যাটের বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৪.৫ কোটি টাকা। ইডি’র তদন্ত সেই বিষয়টি সামনে উঠে এসেছে। কিন্তু বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যমে অঙ্কিতার দিকে আঙুল তোলা হয়েছিল বলে মনে করায় অভিনেত্রী উত্তর দিয়েছেন।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here