kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: অ্যান্টিগুয়া এবং বারবুডার প্রধানমন্ত্রী গেস্টন ব্রাউন স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন যে, আর্থিক অপরাধী নীরব মোদীর আত্মীয়কে ভারতে ফেরত পাঠাবে তাদের সরকার। একই সঙ্গে জানানো হয়েছে, সেখানকার আদালতে মেহুলের আর কোনও আবেদন নতুন করে শোনা হবে না। তবে মেহুলের অ্যান্টিগুয়ার নাগরিকত্ব নিয়ে বল ভারতের দিকেই ঠেলে দিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, ভারতই তো ছাড়পত্র দিয়েছিল মেহুলকে! যদি তা না হত তাহলে সে দেশের নাগরিকত্ব মেহুল চোকসি পেত না বলে দাবি করা হয়েছে।

মেহুলকে ভারতের ফেরানোর প্রসঙ্গে গেস্টন ব্রাউন বলেন, ‘মেহুল ধূর্ত ও ধড়িবাজ। আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি যে শেষ পর্যন্ত ওকে দেশেই ফেরত পাঠানো হবে। ওঁর বিরুদ্ধে যা য অভিযোগ রয়েছেন ভারতে গিয়েই সেগুলোর সঙ্গে মোকাবিলা করতে হবে।’ পাশাপাশি, মেহুল চোকসির নাগরিকত্ব পাওয়া নিয়ে হতাশা জাহির করেন তিনি। এক্ষেত্রে বলেন, ‘মেহুলের সম্বন্ধে যদি সঠিক তথ্য ভারত দিয়ে থাকত, তাহলে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টিই হত না। ভারতের ছাড়পত্রের জন্যেই আজকের এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এর দায় ভারতকে নিতে হবে।’

প্রসঙ্গত, পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার কোটি আর্থিক জালিয়াতি করে দেশ ছেড়ে অ্যান্টিগুয়া পালিয়েছিল মেহুল চোকসি। কিন্তু অ্যান্টিগুয়া ও ভারত সরকারের মধ্যে কোনও প্রত্যার্পণ আইন না থাকায় ভারতের তরফে কিছুই করা সম্ভব হচ্ছিল না। ইন্টারপোল রেড কর্ণার নোটিশ জারি করে মেহুলকে একাধিকবার ভারতে ডেকে পাঠিয়েছে। কিন্তু প্রতিবারই নানা টালবাহানা করে হাজিরা সে এড়িয়ে গিয়েছে। এই নিয়ে অ্যান্টিগুয়া সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা দীর্ঘদিন ধরেই করে এসেছে ভারত। অবশেষে তার সুফল মিলতে চলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here