নিজস্ব প্রতিবেদক, সিউড়ি: লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর থেকে বীরভূমের দৌর্দণ্ডপ্রতাপ তৃণমূল জেলার সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে বেশ কয়েকদিন দেখা গিয়েছিল বিশ্রাম নিতে। তিনিও বলেছিলেন, ভোটের প্রচারে অনেক পরিশ্রম হয়েছে, তাই কয়েকদিন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানোর। দিন কয়েক এভাবে কাটানোর পর শুক্রবার ফের স্বমহিমায় দেখা গেল বীরভূম জেলার সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে। এদিন সাঁইথিয়ায় তৃণমূলের তরফ থেকে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সমাবেশের প্রধান বক্তা ছিলেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রথম থেকেই যে দিকে নজর দেন তা হল কর্মীদের মনোবল ফেরানো। বক্তব্য শুরু থেকেই তিনি কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, “ভয় পাবেন না, আমরা আছি।”

একইসঙ্গে তিনি সাঁইথিয়া এলাকার বিধায়ক, পুরসভার চেয়ারম্যান, বিভিন্ন পঞ্চায়েতের প্রধান ও অন্যান্য কর্মীদের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তারপরই তাঁর বক্তব্যে শুরু হয় বিরোধীদের আক্রমণ।তিনি কর্মীদের উদ্দ্যেশে বলতে শুরু করেন, “কে এলো, আর কে গেল, আমরা চিন্তা করি না। আমরা আছি, মমতা ব্যানার্জি আছেন, তৃণমূল কংগ্রেস আছে। আমরা উন্নয়ন করেছি, ওরা উন্নয়ন করে নাই।”

এরপরই তাঁর মুখ থেকে এসেই ঝাঁঝালো বক্তব্য বেরিয়ে আসতে শুরু করে। বলেন, “যদি কেউ ভাবেন ঝামেলা করবো, মস্তানি করবো, আমরা রাজি আছি। সব সময় রাজি আছি। দল করার সবার অধিকার আছে, দল করুন ভদ্রভাবে করুন।”এরপর তিনি জেলার তৃণমূল সহ সভাপতি রানা সিংয়ের বক্তব্যকে উল্লেখ করে বিরোধীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “বাড়িতে বাড়িতে মদ খেয়ে পাঠাবেন না, আমি গাঁজা খাইয়ে পাঠিয়ে দেবো। আপনারা যা করবেন, আমরা তার চারগুন করবো। যদি ভাবেন তৃণমূল কংগ্রেস হয়ে ঘরে বসে আছে, তাহলে মূর্খের মতো ভাবছেন। আপনি ছড়ি দেখালে, আমরা ডান্ডা দেখাবো। আপনি বাড়ি মারলে, আমরা পাঠিয়ে দেবো।”

এরপর তিনি সিপিআইএমকে আক্রমণ করে বলেন, “আর সিপিএমের হার্মাদ, তোমরা বিজেপিতে ঢুকে খুব মজা করছো। এমন পেটানো পেটাবো শিক্ষা দিয়ে দেবো।” এরপর তিনি আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে খয়রাশোলের দুষ্কৃতীদের হামলা প্রসঙ্গে বলেন, “ওটি তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ছিল না, কয়লা নিয়ে গন্ডগোল ছিল।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here