নিজস্ব প্রতিবেদক, বীরভূম: ফের স্বমহিমায় বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। তাঁর নামে নির্বাচন কমিশন একাধিক সতর্কবার্তা পাঠালেও দমতে নারাজ কেষ্ট। বক্তৃতার ঝাঁজ একটু কমেছে ঠিকই। কিন্তু বাক্যবাণে খোঁচা এখনও আগের মতোই মারছেন কেষ্ট। বীরভূমের বোলপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অসিত মালের সমর্থনে বুদবুদের দেবশালায় একটি রাজনৈতিক জনসভায় উপস্থিত হয়ে বিজেপির উপর আক্রমণ হানেন তিনি। অমিত শাহকে ‘মোটা’ বলে কটাক্ষ থেকে শুরু করে রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে সভাস্থল জমিয়ে দেন অনুব্রত।

এদিনের সভায় বিরোধীদের জন্ডিস রুগী বলে তোপ দাগেন অনুব্রত। বলেন, ‘বিরোধীরা এত জন্ডিসে ভুগছে, জন্ডিস রোগটা খুব বাজে রোগ। সব আস্তে আস্তে শুকিয়ে দিচ্ছে। তবে এই জন্ডিসের চিকিৎসা আছে, হবেও। জন্ডিসের চিকিৎসা পরে বলে দেব। কোন হসপিটাল যেতে হবে বলে দেব।’ অন্যদিকে দিনদুয়েক আগেই আলিপুরদুয়ারের সভা থেকে পশ্চিমবঙ্গে ২৩টি আসন দখলের হুঙ্কার দেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। তাঁর সেই দাবিকে ‘মোটা’ বলে কটাক্ষ করে উড়িয়ে দেন অনুব্রত। তিনি বলেন, আসলে অনেক মোটা লোকটা তো, কখন কী বলে জানে না। যখন গ্যাস হয়ে যায়, ভুলভাল কথা বলে।’

প্রসঙ্গত, অনুব্রত মণ্ডলের বেসামাল মন্তব্যের জন্য ইতিমধ্যেই তাঁকে একাধিকবার শো-কজ নোটিশ পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। দলের নেতাকে সতর্ক করতে চিঠি দেওয়া হয়েছে তৃণমূলেও। তারপর থেকে কিছুটা হলেও সামলে রয়েছেন কেষ্ট। কমিশন প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘নির্বাচন কমিশন যেটা ভালো মনে করেছে সেটাই করেছে। আমাদের কোনও অসুবিধা নেই।’ তবে বিজেপির তরফে প্রার্থী দুধকুমার মণ্ডলকে বিশেষ পাত্তা দিতে নারাজ অনুব্রত। তাঁর মন্তব্য প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া চাওয়া হলে সরাসরি এড়িয়ে যান কেষ্ট।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here