kolkata news

Highlights

  • জামিয়াতে গিয়ে অমিত শাহের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে দেখা গিয়েছে পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপকে
  • জামিয়ার পড়ুয়াদের পাশে গিয়ে পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ সিএএ-এনআরসি সহ কেন্দ্রীয় সরকারের নানা নীতির বিরুদ্ধেও সোচ্চার হন
  • নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ডিসেম্বর মাসের মাঝমাঝি সময় থেকেই শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ শুরু করে জামিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ফের অনুরাগের নিশানায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। গতকাল জামিয়াতে গিয়ে অমিত শাহের বিরুদ্ধে তোপ দাগতে দেখা গিয়েছে পরিচালককে। অনুরাগ গতকাল বলেছেন, ”আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপর কোনও বিশ্বাস নেই। ওনার কথা আর কাজের মাঝে কোনও মিল নেই। উনি বলেছিলেন এনআরসি-সিএএ নিয়ে কোনও বিল আনবেন না। কিন্তু তার দু’দিন বাদেই সংসদে বিল নিয়ে চলে এলেন।” গতকাল জামিয়ার পড়ুয়াদের পাশে গিয়ে পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ সিএএ-এনআরসি সহ কেন্দ্রীয় সরকারের নানা নীতির বিরুদ্ধেও সোচ্চার হন। নাগরিকত্ব সংশোধিনী বিলের প্রতিবাদে ও দিল্লি পুলিশের নির্মম অত্যাচারের ঘটনায় দীর্ঘ দু’ মাস ধরেই শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছেন ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জামিয়াতে গিয়ে অনুরাগ জানান, ”আমি জামিয়াতে প্রথমবার এলাম, কোথায় যেন মনে হচ্ছিল, সবকিছুই থেমে গিয়েছে। কোনও বিরোধ হচ্ছে না, যেন আমরা সবাই মরে গিয়েছি। কিন্তু জামিয়াতে এসে সেই ভুল ভেঙেছে আমার, এখন মনে হচ্ছে না আমরা বেঁচেই রয়েছি, আন্দোলন করেই যাচ্ছি।” তিনি আরও জানান, ”সিএএ বিরোধী আন্দোলনটা জামিয়ার পড়ুয়ারা শুরু করেছে, আমাদের দায়িত্ব এই আন্দোলনটাকে বহু দূর পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া, আর এর শেষ দেখে ছাড়া। এর সঙ্গে নির্বাচনের কোনও সম্পর্ক নেই।” গতকাল জামিয়া থেকেই আবারও অমিত শাহের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে অনুরাগ জানান, ”স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাজ হল আমাদের নিরাপত্তা দেওয়া, কিন্তু উনি সেই বিষয়ে না ভেবে ক্রমাগত বিরোধীদের কণ্ঠ রোধের চেষ্টা করছেন।” যদিও অনুরাগ গতকাল বারবার জানিয়েছেন এই আন্দোলনের সঙ্গে তাঁর কোনও রাজনৈতিক যোগাযোগ নেই। পরিচালক এই বিষয়ে স্পষ্ট জানিয়েছেন, ”আমি ভাষণ দিই না, শুধুমাত্র মনের কথা বলি।”

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ডিসেম্বর মাসের মাঝমাঝি সময় থেকেই শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ শুরু করে জামিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু সেই সময়ই সিএএ বিরোধী আন্দোলন করায় ছাত্র আন্দোলন থামানোর নামে কার্যত ক্যাম্পাসে ঢুকে নির্বিচারে লাঠি, কাঁদানে গ্যাস চালায় পুলিশ। সেই সংক্রান্ত ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়াতে। যদিও দিল্লি পুলিশের দাবি ছিল জামিয়াতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের নামে হিংসা ছড়ানো হচ্ছে, তাই তারা কঠোর হাতে নিয়ন্ত্রন করতে গিয়েছিলেন। আর দিল্লি পুলিশের এই আচরনের পর থেকেই উত্তাল হয় দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়।

পুলিশের ওই আচরনের জন্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের সিএএ আইনের বিরুদ্ধে লাগাতার গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আন্দোলন করেই চলেছেন জামিয়ার পড়ুয়ারা। এদিকে বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের সিএএ-এনআরসি ইত্যাদি নানান নীতির জন্য বারবার আক্রমনাত্মক ভূমিকায় হাজির হতে দেখা যায় অনুরাগকে। কখনও সোশ্যাল মিডিয়াতে আবার কখনও অনুষ্ঠান মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহকে বেনজির আক্রমণও করেছেন অনুরাগ কাশ্যপ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here