kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভাঙড়ে বহিরাগত প্রার্থী মানব না। এই স্লোগান তুলে এবার দলের বিরুদ্ধে গিয়ে প্রতিবাদ মিছিল করলেন ভাঙড়ের দোর্দণ্ডপ্রতাপ তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলাম। শুক্রবার দলের প্রার্থী তালিকা ঘোষাণার পর নিজের নাম দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন আরাবুল।

ভাঙড়ের প্রার্থী হিসাবে ডাঃ রেজাউল করিমকে টিকিট দিয়েছে তৃণমূল। আর এই ঘোষণার পর মুষড়ে পড়েন বাবা-ছেলে। হাউ হাউ করে কাঁদেন ছেলে হাকিমুল। চোখের জল ফেললেন আরাবুল ইসলামও। এর পাশাপাশি ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘এই দলটাকে বুকে আঁকড়ে নিয়ে ভাঙড়ের সাধারণ মানুষের পাশে থেকে আমি লড়াই করেছি। আজকে যা হল তার জন্য সবাই হতাশ।‘ এই ঘটনার কিছুক্ষণের মধ্যেই ভাঙড়ের নতুনহাট, হাতিশালা সিক্স লেন অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান আরাবুল অনুগামীরা।

শনিবার ভাঙড়ের বিজয়গঞ্জ বাজারে ‘বহিরাগত প্রার্থী মানছি না, মানব না’- এই স্লোগান তুলে বিক্ষোভ দেখান আরাবুল-সহ তার অনুগামীরা। এদিনের ঘটনার পর আরাবুল ইসলাম দল ছাড়বেন, নাকি নির্দল প্রার্থী হয়ে ভোটে দাঁড়াবেন- সেই জল্পনাই ঘুরপাক খাচ্ছে ভাঙড়ের বাতাসে।

২০০৬ সালে সিপিএমকে হারিয়ে আরাবুল বিধায়ক হন। এরপর ২০১১ সালে তিনি ফের টিকিট পান। কিন্তু তার বিরোধিতা করে নান্নু হোসেন নির্দল প্রার্থী হন। ভোট কাটাকুটির খেলায় আরাবুল হেরে যান সিপিএম প্রার্থী বাদল জমাদারের কাছে। এরপর ২০১৬ সালে এই গোষ্ঠীকোন্দল চাপা দিতে তৃণমূল প্রার্থী করে প্রাক্তন সিপিএম নেতা বর্ষীয়ান রেজ্জাক মোল্লাকে। তিনি জিতে যান। কিন্তু রেজ্জাক মোল্লা খুব একটা কাজ করতে পারেননি বলে অভিযোগ এলাকার মানুষের। কারণ গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জন্য ভাঙড়ে রেজ্জাক মোল্লা কাজ করতে পারেননি বলে একাধিকবার ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন তিনি। সেই রেজ্জাক মোল্লাকে এবার টিকিট দেওয়া হল না। তার বদলে ভাঙড়ে প্রার্থী হয়েছেন রেজাউল করিম।

​ভাঙ্গড়ের তৃণমূল নেতাদের মধ্যে আরাবুল ইসলাম, নান্নু হোসেন, ওহিদুল ইসলাম, কাইজার আহমেদ প্রত্যেকেই টিকিট প্রত্যাশী ছিলেন। তাদের কাউকে টিকিট দেওয়া হয়নি। আর টিকিট না পাওয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। এবার মাঠে নেমে দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন আরাবুল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here