kolkata news

Highlights

  • রীতিমতো সাড়া ফেলে দিলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়
  • সাংবিধানিক প্রধানের মুখ থেকে এমন বক্তব্য শুনে কানে তালা লাগার জোগাড় শ্রোতাদের
  •  মহাভারতের অর্জুনের তিরে ছিল পরমাণু শক্তি

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গরুর দুধে সোনা হোক বা মহাভারতের যুগে ইন্টারনেট স্যাটেলাইট, বিজ্ঞানের বই পত্রে জল ঢেলে একে একে বিতর্কের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব ও দিলীপ ঘোষরা। সেই ধারাকে অপরিবর্তিত রেখে এবার রীতিমতো সাড়া ফেলে দিলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তাঁর দাবি, মহাভারতের জামানায় অর্জুন যে তির ব্যবহার করতেন তাতে লাগানো ছিল পরমাণু শক্তি। রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের মুখ থেকে এমন বক্তব্য শুনে কানে তালা লাগার জোগাড় শ্রোতাদের।

মঙ্গলবার রাজ্যে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। সেখানেই তিনি তুলে আনেন দেশের দুই ধর্মগ্রন্থ রামায়ণ ও মহাভারতের কথা। তিনি বলেন, ‘বিংশ শতাব্দী নয়, ‘হাওয়াই জাহাজ’ বা উড়ন্ত যানের কথা বলা হয়েছে রামায়ণে। মহাভারতের সঞ্জয়ের মুখেই সোনা গিয়েছে এই কথা।’ তবে এটাই শেষ নয়, আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে এবার একেবারে লাফ দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তিনি বলে বসলেন, ‘ভারতকে উপেক্ষা করা যাবে না। কারণ মহাভারতের অর্জুনের তিরে ছিল পরমাণু শক্তি।’ সাংবিধানিক প্রধানের মুখ থেকে এমন মন্তব্য শুনে কার্যত ‘পিন ড্রপ সাইলেন্স’ তৈরি হয় ওই অনুষ্ঠানে। আজব এহেন দাবিতে শুরু হয় জোর বিতর্ক।

তবে, এহেন বিতর্ক শুধু রাজ্যপাল নয়, এর আগেও এহেন আজব দাবি শোনা গিয়েছে দেশের বহু বিজেপি নেতাদের মুখে। সম্প্রতি রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের দাবি ছিল, ‘দেশী গরুর পিঠে কুঁজ রয়েছে। ওই কুঁজে স্বর্ণ নাড়ি। ওখানে যখন সূর্যরস্মি এসে পড়ে তখন সেখানে সোনা তৈরি হয়। এ কারণেই দেশি গরুর দুধ হলদে রঙের হয়, হাল্কা সোনালী হয়। কারণ এতে সোনা রয়েছে। কেউ যদি শুধু দেশি গরুর দুধ খান, তাহলে আর কিছু খাওয়ার দরকার হবে না।’

এতো গেলেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর আগেই অবশ্য জাতীয় রাজনীতিতে এমন মন্তব্যে নিজেকে বেশ উপরের সারিতে তুলে এনেছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। তাঁর দাবি ছিল, ‘আমেরিকা বা পশ্চিমের অন্যান্য দেশগুলি নয়। লক্ষ লক্ষ বছর আগে এই ভারতেই আবিষ্কৃত হয়েছিল ইন্টারনেট।’ এছাড়াও বিজ্ঞানকে রীতিমতো কাঁদিয়ে বিপ্লব দেবের দাবি ছিল, ‘হাঁস জলে সাঁতার কেটে জলের অক্সিজেনের স্তর বাড়াতে সাহায্য করে।’ যাইহোক, ভারতীয় রাজনীতিতে এহেন মন্তব্যের জন্য সাড়া ফেলে দেওয়ার এই দুই বিজেপি নেতার সঙ্গে এবার এক সারিতে বসে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here