নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: শনিবার দিল্লি থেকে কার্যত উৎসবের আবহেই ভাটপাড়ার মেঘনা মোড়ে নিজের বাড়িতে ফেরেন স্থানীয় বিধায়ক তথা পুরপ্রধান এবং সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করা অর্জুন সিং। বিজের বাড়িতে পা রেখেই জানিয়েছিলেন তিনি যে দিকে যাবেন ভাটপাড়ার কাউন্সিলাররাও সেই দিকেই থাকবে। এটাও জানিয়েছিলেন তার প্রথম ও প্রধান লক্ষই হল ব্যারাকপুরে দীনেশ ত্রিবেদীকে হারানো। লিন্তু রবিবার কাঁকানাড়ায় তৃণমূলের প্রচার সভায় ৩৫ আসন বিশিষ্ট ভাটপাড়া পুরসভার ১৯জন কাউন্সিলারকে হাজির করিয়ে অর্জুনের সেই দাবি নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলার তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। পাশাপাশি এদিনের সভামঞ্চ থেকেই অর্জুন সিংকে ভাটপাড়ার গুন্ডারাজ বলে আক্রমণ শানানো হয়।

রবিবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর মহকুমার কাঁকিনাড়ায় অর্জুন সিংয়ের বিরুদ্ধে তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদীর সমর্থনে প্রথম প্রচার সভা করল উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। এই প্রচারসভায় অর্জুন সিংকে ‘গুন্ডারাজের নায়ক’ আখ্যা দিলেন আসন্ন লোকসভা ভোটে অর্জুন সিংয়ের প্রধান প্রতিপক্ষ হিসাবে চিহ্নিত তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী। কাকিনাড়া বাজারে প্রথম প্রচার সভায় এসে দীনেশ ত্রিবেদী বলেন, ‘২০০৯ সালে দল আমাকে ব্যারাকপুরে লড়াই করতে পাঠিয়েছিল গুন্ডা তড়িৎ তোপদারের বিরুদ্ধে। ২০১৯ এ আমার লাড়াই গুন্ডা অর্জুন সিংয়ের বিরুদ্ধে। আমাকে গত ৫ বছর অর্জুন ভাটপাড়া এলাকায় কোন সভাসমিতি করতে দেয়নি। এই অঞ্চলে আমি মানুষের সঙ্গে মিশতে পারতাম না। অর্জুন চলে যাওয়াতে ভাটপাড়া আজ স্বাধীন হয়েছে।’

 

এই সভাতেই বক্তব্য রাখতে এসে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘ভাটপাড়া পুরসভা তৃণমূল কংগ্রেসের ছিল, তৃণমূল কংগ্রেসেরই থাকবে।’ উল্লেখ্য দীনেশ ত্রিবেদী সমর্থনে অনুষ্ঠিত এই প্রচার সভায় ভাটপাড়া পুরসভার ৩৫ জন কাউন্সিলরের মধ্যে তৃণমূলের টিকিটে জেতা ১৯ জন কাউন্সিলর মঞ্চে উপস্থিত হয়ে জানিয়ে দেয় তারা অর্জুন সিংয়ের সঙ্গে নেই, তারা তৃণমূলেই রয়েছেন। এই ১৯ জন কাউন্সিলরের তালিকা জনতার সামনে পড়ে শোনান ভাটপাড়া পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান সোমনাথ তালুকদার। এই দিন সভা মঞ্চে দাঁড়িয়ে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘আমরা অর্জুনের সমস্ত দুর্নীতির তদন্ত করব। এই ভাটপাড়া জগদ্দল এলাকার জুটমিলগুলো থেকে ও কত টাকা তুলত তার হিসাব ওকে দিতে হবে। পুরসভার সমস্ত কাজের অডিট করানো হবে। দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত করেছিল ভাটপাড়া পুরসভাকে। আমরা স্বচ্ছতার সঙ্গে আগামী দিনে ভাটপাড়া পুরসভা পরিচালনা করব।’

নৈহাটির তৃনমূল বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বলেন, ‘অর্জুন কন্ট্রাক্টরদের কাজ করিয়ে টাকা দিত না। কন্ট্রাক্টরদের বলেছি আমাদের কাছে তাদের কাজের যথাযথ হিসেব পেশ করতে। আমরা সব দেখে নিয়ে কন্ট্রাক্টরদের বাকেয়া টাকা পরিশোধ করে দেব।’ অর্জুনের বিরুদ্ধে এই প্রচার সভায় উপস্থিত প্রধান অতিথি ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা লক্ষ্মীরতন শুক্লা। তিনি বলেন, ‘দলত্যাগী ওই ব্যক্তি যেভাবে মা মাটি মানুষ শব্দকে অপমান করেছেন মানি শব্দ ব্যবহার করে তার জবাব মানুষ ব্যালটেই দেবে।’ রবিবার সন্ধ্যায় দীনেশ ত্রিবেদীর এই প্রচার সভায় কাকিনাড়া বাজার এলাকায় হাজার খানেক তৃণমূল কর্মী সমর্থক উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে এদিন কাঁকিনাড়া এলাকায় অর্জুন সিং বিজেপির দলীয় নেতা কর্মীদের সাথে বৈঠক করে আগামী দিনে নির্বচনের প্রচার কর্মসূচি স্থির করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here