national news

Highlights

  • সিয়াচেনে মোতায়েন ভারতীয় জওয়ানদের দেওয়া হবে পার্সোনাল কিট
  • এক থেকে দেড় লক্ষ টাকার পার্সোনাল কিটের ব্যবস্থা করল ভারতীয় সেনা
  • সেনাবাহিনীর ব্যবহারের জন্য এই কিটটিতে থাকছে ডাউন জ্যাকেট ও বিশেষ গ্লোভস, বিশেষ শীতের পোশাক

মহানগর ওয়েবডেস্কঃ যেদিকে চোখ যায় সেদিকে আদিগন্ত বিস্তৃত বরফ। ১৮ থেকে ২০ হাজার ফুট উঁচু বরফের পাহাড় ছড়িয়ে রয়েছে চারিদিকে। প্রতি পদে পদে ঘাপটি মেরে রয়েছে মৃত্যু। কথা হচ্ছে সিয়াচেন গ্লেসিয়ারের। যেখানে সাধারণ তাপমাত্রাই থাকে মাইনাস ২৫-৩০ ডিগ্রির মধ্য়ে। দুর্গম এই জায়গায় সারাক্ষণ মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে অতন্দ্র প্রহরায় থাকে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জওয়ানরা। এবার এই দুবোর্ধ্য আবহাওয়ার সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য জওয়ানদের মাথাপিছু এক লক্ষ টাকার পার্সোনাল কিট দেওয়ার কথা ঘোষণা করল কেন্দ্র।

অপ্রতিরোধ্য এই আবহাওয়া টিকে থাকাটাই যেখানে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের ব্যাপার সেখানে প্রতিনিয়ত দেশকে আগলে রাখছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জওয়ানরা। এবার তাদের জন্য এক থেকে দেড় লক্ষ টাকার পার্সোনাল কিটের ব্যবস্থা করল ভারতীয় সেনা। কিন্তু কী এমন আছে এই কিটটিতে? জানা গিয়েছে, বিশেষভাবে সেনাদের জন্য তৈরি করা এই কিটটিতে রয়েছে শীতের বিশেষ কিছু জামাকাপড়। যেগুলি মাল্টিলেয়ার বা বহুস্তরীয়। সেই পোশাকের দাম ২৮ হাজার টাকা। এরই সঙ্গে থাকবে স্পেশাল স্লিপিং ব্যাগ। যেটির ভিতরে ঢুকে শুতে পারবেন জওয়ানরা। এই স্লিপিং ব্যাগটির দাম ১৩ হাজার টাকা।

সেনাবাহিনীর ব্যবহারের জন্য এই কিটটিতে থাকছে ডাউন জ্যাকেট ও বিশেষ গ্লোভস। ১৪ হাজার টাকা দাম সেটির। এছাড়াও থাকছে ১২ হাজার টাকার দামের মাল্টিপারপাস শু। এতো গেল পার্সোনাল কিটের কথা। এই কিটটি ছাড়াও সিয়াচেনে থাকা সেনাবাহিনীর কাছে থাকবে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার। যেটির দাম প্রায় ৫০হাজার টাকা। সিয়াচেনের মত জায়গায় অত্যন্ত জরুরী এই অক্সিজেন সিলিন্ডার। কারণ উচ্চতা যত বাড়ে ততই কমতে থাকে অক্সিজেনের পরিমাণ।

এছাড়াও একটি গেজেট সেনাকে দেওয়া হচ্ছে যার মাধ্যমে তারা বুঝতে পারবে হিমাবাহের তলায় কেউ চাপা পড়েছে কিনা। কারণ তুষারধস ছাড়াও মারাত্মক তুষারঝড় মাঝে মাঝে আছড়ে পড়ে সিয়াচেনের বুকে। পরিস্থিতি জটিল হলে সেই সব তুষারঝড় কখনও কখনও ১৫ থেকে ২০ দিন ধরে চলতে থাকে। হিমবাহে কর্তব্যরত জওয়ানদের জন্য তা সত্যিই অভিশাপের মতো। বহু মৃত্যু ডেকে আনে সেই সব ভয়ঙ্কর তুষারঝড়। এবার থেকে এই গেজেটের মাধ্যমে বোঝা যাবে সেই তুষারঝড়ের নীচে কেউ চাপা পড়েছে কিনা।

১৯৮৪ সাল থেকেই সিয়াচেনে অবস্থান করছে ভারতীয় সেনা। হিমবাহের মধ্যভাগ প্রায় ২৫ কিলোমিটার চওড়া। ১৮ হাজার ফুট উচ্চতার সেই অঞ্চলেই ভারতীয় সেনার বেস ক্যাম্প। এ ছাড়াও সেনা চৌকি রয়েছে হিমবাহের আরও নানা প্রান্তে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here