নিজস্ব প্রতিবেদক, বালুরঘাট: সৌজন্যের রাজনীতির সাক্ষী থাকলো দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা। শনিবার বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃনমূল কংগ্রেস প্রার্থী তথা নাট্যকর্মী অর্পিতা ঘোষ নিজের প্রচার ছেড়ে চলে গেলেন বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে সেখানে ভর্তি বিরোধী দলের অসুস্থ প্রাক্তন সাংসদ প্রশান্ত মজুমদারকে দেখতে। আরএসপির প্রাক্তন সাংসদ প্রশান্তবাবু শনিবারই সেরিব্রাল স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন। বালুরঘাট শহরে প্রচারের সময় এই সংবাদ জানতে পেরে অর্পিতা প্রচার ছেড়ে হাসপাতালে চলে আসেন বিরোধী দলের অসুস্থ প্রাক্তন সাংসদকে দেখতে। পাশাপাশি তিনি বালুরঘাট পুরসভার আরএসপির প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা সাংবাদিক হৃদরোগে আক্রান্ত দীপঙ্কর ব্যানার্জীকেও দেখে আসেন।

উল্লেখ্য, প্রশান্ত মজুমদার ২০০৯ সালে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে আরএসপির সাংসদ হিসাবে নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালে আরএসপির অন্য প্রার্থী বিমল সরকারকে হারিয়ে জয়ী হন তৃণমূলের অর্পিতা ঘোষ। এবারও অর্পিতা ঘোষ তৃণমূলের প্রার্থী। জানা গিয়েছে, প্রশান্তবাবু শারীরিক অসুস্থ থাকায় বেশ কিছু দিন ধরেই দলের সঙ্গে কোন সম্পর্ক নেই তার। পাশাপাশি একসময়ের বালুরঘাট পৌরসভা পুরপ্রধান দীপঙ্কর ব্যানার্জীও গত দুইদিন যাবৎ বালুরঘাট হাসপাতালের সিসিইউ ইউনিটে চিকিৎসাধীন। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে দুইজনের অবস্থা বেশ সঙ্কটজনক। বর্তমানে এদের দুইজনে চিকিৎসা চলছে হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে। অর্পিতা তাদের শরীরের স্বাস্থ্যের খোঁজ নেন ও চিকিৎসায় যাতে কোনো ত্রুটি না থাকে তার বন্দোবস্ত করেন।

 

শনিবার সকালে জেলার প্রসিদ্ধ বোল্লা কালী মন্দিরে পুজো দিয়ে প্রচারে নামেন অর্পিতা ঘোষ। সেখানেই খবর পান প্রশান্তবাবু ও দীপঙ্করবাবুর শারীরিক অবস্থার কথা। এরপরই প্রচার বন্ধ করে হাসপাতালে যান অর্পিতা। অসুস্থ প্রাক্তন বাম সাংসদকে দেখতে তৃণমূল সংসদের উপস্থিতিতে হাসপাতাল চত্বরে উপস্থিত মানুষজন কার্যত চমকে ওঠেন। বর্তমান কালের নোংরা রাজনীতির আবহে এমন সৌজন্য সত্যি বিরল। তবে এমন রাজনৈতিক শিষ্টাচার সকলের কাছ থেকেই কাঙ্খিত একথা জানিয়েছেন শহরের বিশিষ্টজনেরাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here