ডেস্ক: অবশেষে পর্দাফাঁস! দীর্ঘ ৬ বছর ধরে ২১ জন নাবালককে দিয়ে যৌন খিদে মেটানোর অভিযোগ উঠল কর্ণাটকের এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে। এই নক্ক্যারজনক ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকের উড়ুপ্পিতে। অভিযুক্তের নাম চন্দ্র কে হেম্মাডি। কর্নাটক পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই সাংবাদিক কর্ণাটকের একটি প্রথম সারির সংবাদপত্রে আংশিক সময়ের সাংবাদিক হিসাবে কাজ করত। সেই হাউসের নাম ভাঙিয়েই হেম্মাডি দিনের পর দিন এই কুকীর্তি চালিয়ে যাচ্ছিল। ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে কর্ণাটকের বায়ন্ডর পুলিশ স্টেশনে পকসো ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই অভিযুক্ত সাংবাদিক ২০১২ সাল থেকেই কর্ণাটকের বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে ঘুরে ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার হাল এবং স্কুলগুলির অবস্থা নিয়ে আর্টিকেল লিখতেন। এই সুযোগেই ওই সমস্ত স্কুলের ছাত্রদের দিয়ে নিজের যৌন খিদে মেটাতেন। শুধু তাআই নয়, হেম্মাডি পুলিশি জেরার মুখে তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ স্বীকার করেছে। হেম্মাডি অনেক ছল চাতুরি করে প্রথমে ঐ ছাত্রদের মা-বাবার সঙ্গে খাতির জমাতেন। তারপরই ছেলেদের পড়াশোনার দায়িত্ব নেবার নাম করে গোপনে এই নক্ক্যারজনক কাজটি চালিয়ে যেতেন। ওই কম বয়সী ছেলেগুলিকে দিয়ে হেম্মাডি যে শুধু তার যৌন খিদে মেটাত তাই নয় ওই সমস্ত কুকীর্তির ছবি নিজের মোবাইলে তুলে রাখত। এবং ছেলেগুলিকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে এই সমস্ত ঘটনা এতদিন চেপে রেখেছিলেন। তবে বেশি দিন সত্যি লুকিয়ে রাখা যায়না, এক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। ওই ছাত্রদের মধ্যেই একজন এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আনে। তারপর থেকে শুরু হয়েছে হেম্মাডির বিরুদ্ধে ওই নির্যাতিত ছাত্রের পরিবারের তরফ থেকে অভিযোগ দায়ের করা। ইতিমধ্যেই হেম্মাডির বিরুদ্ধে ১৬ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং কর্ণাটক পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। হেম্মাডির বিরুদ্ধে এহেন অভিযোগ প্রকাশ্যে আসার সঙ্গে সঙ্গেই তাকে সংবাদপত্রের প্রতিষ্ঠান থেকে সরিয়ে দেওয়াও হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here