নিজস্ব প্রতিবেদক,বালুরঘাট: মঙ্গলবার আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেফতার দক্ষিন দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতির তৃণমূল সদস্য লিটন মহন্ত। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। জানা গিয়েছে, বুধবার ধৃতকে তোলা হলে বালুরঘাট জেলা আদালতে তাকে তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে বালুরঘাট মহকুমার আর্যসমিতি এলাকায় নাকা চেকিং বালুরঘাট থানার চালাচ্ছিল পুলিশ। সেই সময় ওই এলাকায় একটি বাইকে দেখে সন্দেহ হয় পুলিশে। গাড়ি থামিয়ে চেকিং-এর সময় পুলিশ বেশ কিছু আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে। অন্যদিকে বাইকের পিছনে বসে ছিলেন বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতির তৃণমূল সদস্য লিটন মহন্ত। এরপরই ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় লিটনকে। এই প্রথম নয়, এর আগেওআগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেফতার হয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রক্তন পঞ্চায়েত প্রধান লগিন দাস। বর্তমানে তিনি অস্ত্র মামলায় জেলে আছেন। পাশাপাশি তৃণমুলের শ্রমিক নেতা রাকেশ শীলও একইভাবে অস্ত্র মামলায় জেলে রয়েছে। একের পর এক তৃণমূল নেতাদের কাছ থেকে এভাবে পিস্তল উদ্ধারের ঘটনায় রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে। গোটা বিষয়টি নিয়ে তৃণমূল বিরোধী শিবিরের দাবী,সমস্থ অস্ত্র এখন তৃণমূল নেতাদের কাছে। অস্ত্র দেখিয়েই তাদের ভোটে জেতার অভ্যাস হয়ে গেছে।

বালুরঘাট থানার পুলিশ সুত্রে খবর, বালুরঘাট খানপুরের বাসিন্দা এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতি থেকে জয় লাভ করেন। এর আগে লিটন মহন্ত কংগ্রেসের নেতা ছিলেন। লিটন মহন্তের নামে আরও অনেকগুলি পুরানো মামলা রয়েছে। এর আগে কোনও এক সময় তাকে দুস্কৃতিরা গুলিও করেছিল। মঙ্গলবার পিস্তল নিয়ে যাওয়ার সময় বালুরঘাট শহরের আর্য সমিতির কাছে তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে পুলিশ। বুধবার তাকে বালুরঘাট জেলা আদালতে পাঠানো হয়। পুলিশ অভিযুক্ত তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যকে চোদ্দ দিনের হেফাজতে চেয়েছিলো। কিন্তু আদালত তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here