kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল জয়। রাজ্যের আট লোকসভা আসনে বিধানসভা ভিত্তিক আসনে এগিয়ে গেল তৃণমূল কংগ্রেস। মাত্র এক আসনে জোর লড়াই। রাজনৈতিক মহলের মতে, বিজেপির পকেটে থাকে ১৯ আসনের মধ্যে কার্যত ৯ আসন বাদ যেতে চলেছে। উল্লেখযোগ্য ভাবে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের একাধিক আসন এই তালিকায় আছে। ফল বিশ্লেষণ করতে দেখা গিয়েছে, যে সব লোকসভা আসনে সমীকরণ বদলেছে সেগুলি হল জলপাইগুড়ি, রায়গঞ্জ, বালুরঘাট, মালদা উত্তর, মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, আসানসোল, বর্ধমান-দুর্গাপুর ও ব্যারাকপুর লোকসভা আসন।

জলপাইগুড়ি লোকসভা আসন: লোকসভা ভোটে এই আসনে বিজেপি পেয়েছিল ৫১.৬৩% ভোট। বিধানসভায় তা কমে দাঁড়িয়েছে ৪১.৭৯%। এই লোকসভার ৭ বিধানসভা আসনে বিজেপি পেয়েছিল ৬টি। একমাত্র তৃণমূল পেয়েছিল রাজগঞ্জ আসনটি। বিধানসভা ভোটে দেখা গেল তৃণমূল জিতে নিয়েছে, রাজগঞ্জ, মাল, জলপাইগুড়ি সদর আসন। বিজেপি জিতেছে ধূপগুড়ি, ময়নাগুড়ি, নাগরাকাটা ও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি। বিধানসভা ভোটে ফলের বিচারে এই লোকসভায় বিজেপি পেয়েছে ৪ আসন, তৃণমূল পেয়েছে ৩টি আসন।

রায়গঞ্জ আসন: লোকসভা ভোটে এই লোকসভায় বিজেপির ঝুলিতে ছিল ৫ বিধানসভা, তৃণমূলের দখলে ছিল ২ বিধানসভা৷ বিধানসভা ভোটের ফল বেরনোর পরে দেখা গেল ফল উল্টে গিয়েছে। বিজেপির হাতে আছে দুই বিধানসভা রায়গঞ্জ ও কালিয়াগঞ্জ। তৃণমূলের দখলে আছে গোয়ালপোখর, চাকুলিয়া, করণদিঘি, ইসলামপুর ও হেমতাবাদ। ফলে এই লোকসভায় বিজেপির হাতে ২ বিধানসভা, তৃণমূলের হাতে ৫ বিধানসভা।

বালুরঘাট: এই আসনে ২০১৯ সালে বিজেপি পেয়েছিল ৪৫% ভোট। দু’বছরে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৩৭%। বিজেপির ঝুলিতে ছিল এই লোকসভার মধ্যে থাকা ৬ বিধানসভা। তৃণমূলের হাতে ছিল ১ বিধানসভা। বিধানসভা ভোটের ফল বেরনোর পরে দেখা গেল শক্তিক্ষয় হয়েছে বিজেপির। বিজেপির হাতে আছে বালুরঘাট, তপন ও গঙ্গারামপুর আসন। তৃণমূলের হাতে চলে গেছে কুমারগঞ্জ, ইটাহার, হরিরামপুর ও কুশমণ্ডি আসন। ফলে লোকসভা ভিত্তিক আসন ভাগ করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে তৃণমূলের হাতে ৪ বিধানসভা ও বিজেপির হাতে ৩ আসন।

মালদা উত্তর: এই লোকসভা আসনে লোকসভা ভিত্তিক বিধানসভার আসন পুনঃবিন্যাসে দেখা যাচ্ছে বিজেপির হাতে আছে গাজোল, ওল্ড মালদা ও হবিবপুর আসন। তৃণমূলের হাতে আছে চাঁচোল, হরিশচন্দ্রপুর, রতুয়া ও মালতীপুর আসন। ফলে লোকসভা ভিত্তিক ফল বিধানসভায় দেখা যাচ্ছে বিজেপি ৩ ও তৃণমূল ৪ আসনে এগিয়ে।

২০১৯ লোকসভা ভোটে জঙ্গলমহল, ব্যারাকপুর ও আসানসোল শিল্পাঞ্চলে ব্যাপক পরাজয় হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। লোকসভা ভিত্তিক ফল বিশ্লেষণে দেখা গিয়েছে একের পর এক বিধানসভা হাতছাড়া হয়েছিল জোড়াফুল শিবিরের। ২০২১-এর বিধানসভা ভিত্তিক ফল বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে, ৫ লোকসভা আসন বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে তৃণমূল। ৫ লোকসভার ৩৫ বিধানসভায় তৃণমূল পেয়েছে ২৯ বিধানসভা। বিজেপি পেয়েছে ৬ বিধানসভা। লোকসভা ভোটে বিজেপি পেয়েছিল ২৪ আসন। তৃণমূল পেয়েছিল ১১ আসন।

মেদিনীপুর: লোকসভা ভোটে বিধানসভা ভিত্তিক ফল বিশ্লেষণে দেখা গিয়েছিল বিজেপির হাতে রয়েছে ৪ আসন। তৃণমূলের হাতে রয়েছে ৩ আসন। এটি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের আসন। তিনি সাংসদ হয়ে যাওয়ার পরে এই লোকসভার মধ্যে থাকা খড়্গপুর সদর আসনে পুনঃনির্বাচন হয়। সেখানে জেতে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভা ভোটে ফল বেরনোর পরে দেখা যাচ্ছে, এই লোকসভার বিধানসভা ভিত্তিক ফল হল বিজেপির হাতে একটি আসন। সেটি অবশ্য খড়্গপুর সদর। তৃণমূলের হাতে রয়েছে ৬ আসন। সবং, ডেবরা, নারায়ণগড়, পিংলা, খড়্গপুর গ্রামীণ ও মেদিনীপুর সদর। ফল এসে দাঁড়িয়েছে বিজেপি ১, তৃণমূল ৬।

ঝাড়গ্রাম: ঝাড়গ্রাম লোকসভায় বিধানসভা ভিত্তিক ফল ছিল বিজেপির ৬ আসন। তৃণমূলের ১ আসন। বিধানসভা ভোটের ফল বেরনোর পরে দেখা গেল তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছে শালবনি আসন। তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছে গোপীবল্লভপুর, বিনপুর, নয়াগ্রাম, ঝাড়গ্রাম, বান্দোয়ান ও গড়বেতা আসন। ফলে বিধানসভা ভিত্তিক ফল বিশ্লেষণে দেখা গেল এই লোকসভায় তৃণমূলের দখলে ৬ বিধানসভা ও বিজেপির হাতে ১ বিধানসভা।

আসানসোল: এটি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র আসন। ২০১৪ ও ২০১৯ দু’বারই এখান থেকে জয় হাসিল করেছে বিজেপি। ২০১৯ লোকসভায় দেখা গিয়েছে এই আসনের ৭ বিধানসভায় বিজেপি পেয়েছিল ৬টি। একটি আসন পেয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। ২০২১ এর বিধানসভা ভোটের ফল বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, এই লোকসভায় মাত্র দুটি বিধানসভায় জিত হাসিল করেছে বিজেপি। তৃণমূলের দখলে ৫ বিধানসভা আসন। বিজেপি পেয়েছে আসানসোল দক্ষিণ ও কুলটি। তৃণমূল পেয়েছে রানিগঞ্জ, বারাবনি, জামুরিয়া, পাণ্ডবেশ্বর ও আসানসোল উত্তর। ফলে বিজেপির হাতে থাকল ২ ও জোড়াফুলের দখলে থাকল ৫ আসন।

বর্ধমান-দুর্গাপুর: এই লোকসভা আসনে বিজেপি পেয়েছিল ৩ আসন ও তৃণমূল পেয়েছিল ৪ আসন। তৃণমূল সাংসদ দল বদল করে নাম লেখান বিজেপি’তে। আর বিধানসভা ভোটের ফল বিশ্লেষণের পর দেখা গেল বিজেপির দখলে মাত্র ১ বিধানসভা দুর্গাপুর পশ্চিম। তৃণমূলের দখলে ৬ আসন। দুর্গাপুর, গলসি, বর্ধমান উত্তর, বর্ধমান দক্ষিণ, ভাতার ও মন্তেশ্বর।

ব্যারাকপুর: গত দু’বছর ধরে অর্জুন-গড়ে সবচেয়ে বেশি অশান্তি হয়েছে। শিল্পাঞ্চলের এই আসন কার্যত বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে তৃণমূল। ২০১৯ লোকসভা ভোটে বিজেপি এখানে পেয়েছিল ৫ বিধানসভা আসন। তৃণমূল পেয়েছিল ২ বিধানসভা আসন। ২০২১ বিধানসভার আসন বিশ্লেষণের পর দেখা গেল, বিজেপির দখলে ১ ও তৃণমূলের দখলে ৬ আসন। বিজেপি পেয়েছে অর্জুনের বাড়ির আসন ভাটপাড়া আসনটি। তৃণমূল পেয়েছে বীজপুর, নৈহাটি, জগদ্দল, নোয়াপাড়া, ব্যারাকপুর ও আমডাঙা আসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here