FotoJet1343

ডেস্ক: লক্ষ্যে দিল্লির কুর্শি। তাই কোনও দল তাঁর বিরোধীপক্ষকে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়তে নারাজ। রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে মমতা বন্দ্যোপধ্যায় বিভিন্ন জেলাওয়াড়ি প্রচার করে চলেছেন। তাঁর লক্ষ্য ৪২-৪২। দিল্লি দখলের ডাক ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনের ঘোষণা মাত্রই জানিয়ে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইমতো পশ্চিমবঙ্গে ৪২ টি আসনের প্রার্থী ঘোষণার পর তারাও নেমে পড়েছেন মাঠে ভোটপ্রচারের জন্য। গতকাল আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মুনমুন সেনের হয়ে রাজ্যে এসেছিলেন বিজেপির প্রাক্তন বিদেশ ও অর্থমন্ত্রী এবং বিজেপি ত্যাগী যশবন্ত সিনহা। কিছুদিন আগেই তিনি জানিয়েছিলেন রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রচারে আসতে চান তিনি। ২০১৯-এর ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে ইউনাইটেড ইন্ডিয়া র‍্যালির সভাতে উপস্থিত ছিলেন যশবন্ত সিনহা। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে সবসময় বিশোদগার করতে দেখা যায় যশবিন্ত সিনহাকে।

এদিনের সভা থেকে তিনি জানান, ”২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে সবথেকে বড় ভুল ছিল নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী করা। কিন্তু ২০১৯ সালে সেই ভুলের যেন পুনরাবৃত্তি না হয়। এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই প্রধানমন্ত্রী করা হোক। আমি তখন জানতাম না যে, গুজরাতে তিনি যেমন গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরেছিলেন, কেন্দ্রে ক্ষমতায় এসে তিনি সেই একই কাজটি করবেন। কিন্তু এখন আমি এখন মমতাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।’

 

আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত অন্ডাল থানার বহুলা মাঠে এদিন মুনমুন সেনের হয়ে প্রচারে গিয়েছিলেন শ্রীরামপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের ক্রীড়া ও যুবকল্যান প্রতিমন্ত্রী লক্ষীরতণ শুক্লা ও মুনমুন সেনের দুই মেয়ে অভিনেত্রী রিয়া ও রাইমা সেন। এদিনের জনসভাতে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। গত ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়া হেকে তৃণমূলের হয়ে ভোটে লড়েছিলেন মুনমুন সেন। চলতি লোকসভাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে আসানসোলের বিজেপি প্রার্থী তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়-র বিরুদ্ধে প্রার্থী করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here