kolkata news
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধি : বিধায়কদের মন বুঝতে রাতের অন্ধকারে এমএলএ হস্টেলে গিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী! অন্তত সোমবার রাতের অন্ধকারে বিরোধী দলনেতার এই অভিযানের গুরুত্ব যে অনেক, তা মনে করিয়ে দিয়েছেন বিজেপি নেতারা। তবে তিনি যে মন পড়তে যাননি, তাও  জানিয়েছেন তাঁরা।

ads

মুকুল-ফোবিয়ায় কাঁটা বিজেপি! তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি ঘুরে ছেলেকে নিয়ে সবুজ শিবিরে ফিরে গিয়েছেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মুকুল রায়। তার পর থেকেই দল ভাঙার আশঙ্কায় কাঁটা গেরুয়া শিবির। কারণ ২০১৭ সালে যখন তৃণমূল ছেড়ে মুকুল বিজেপিতে যোগ দেন, তখন দল ভাঙানোর খেলায় মেতেছিলেন তিনি। তাঁর লক্ষ্যই ছিল, ‘বাংলায় তৃণমূলকে শেষ করে দেওয়া’। সেই লক্ষ্য পূরণেই তৃণমূল ভাঙাতে শুরু করেন মুকুল। মুকুলের এই ভাঙন-নেশার সুফল ঘরে তুলতে থাকে বিজেপি। যে রাজ্যে গেরুয়া সংগঠন খুঁজতে দূরবীণের প্রয়োজন হত, সেখানেই এখন গিজগিজ করছে গেরুয়া নিশান।

এই ছবিটাই বদলে যেতে চলেছে সম্প্রতি। কারণ সপ্তাহ দুয়েক আগেই ছেলে শুভ্রাংশুকে নিয়ে তৃণমূলে ফিরে গিয়েছেন মুকুল। তার পরেই দলে ধস নামার আশঙ্কায় কাঁটা গেরুয়া শিবির। তৃণমূলে যোগ দিয়েই মুকুল জানিয়েছিলেন তাঁর সঙ্গে বিজেপির অন্তত ২৫ জন বিধায়ক যোগাযোগ রাখছেন। এর পরেই কার্যত ঘুম উড়ে যায় বিজেপি নেতৃত্বের।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সেই আশঙ্কায়ই গতকাল, সোমবার এমএলএ হস্টেলে নৈশ অভিযানে যান শুভেন্দু। যদিও বিরোধী দলনেতার দাবি, পুরসভা ঘেরাও কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়ে জখম হয়েছিলেন নাটাবাড়ির বিধায়ক মিহির গোস্বামী। তাঁকে দেখতেই হস্টেলে গিয়েছিলেন তিনি। শুধু হস্টেলে যাওয়াই নয়, আজ, মঙ্গলবারও বিধানসভায় দলীয় বিধায়কদের নিয়ে একান্তে বৈঠক করেন শুভেন্দু এবং দিলীপ ঘোষ। তার পরেও কি ভাঙন রোখা যাবে? প্রশ্ন দলেই।     ন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here