ডেঙ্গুতে ‘আক্রান্ত’ পুর নিগমের মাসিক অধিবেশনও! বাদানুবাদে জড়ালেন ডেপুটি মেয়র

0
194

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ডেঙ্গু নিয়ে সরগরম কলকাতা পুর নিগমের মাসিক অধিবেশন। শহরে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে তীব্র বাদানুবাদে জড়ালেন শাসক ও বিরোধী দলের কাউন্সিলররা। চলতি বছরে শহরে এখনও পর্যন্ত ৬০২ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে কলকাতা পুর নিগমর ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ জানিয়েছেন। পুরভবনে আজ মাসিক অধিবেশনের শেষে সাংবাদিকদের এই কথা জানিয়ে অতীন ঘোষ বলেন, গতবছর এই সময় পর্যন্ত শহরে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৯১১। ফলে গত বছরের তুলনায় শহরে ডেঙ্গু অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা গিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

এদিকে, ডেঙ্গু আক্রান্তের তথ্য নিয়ে দাবি, পাল্টা দাবিতে আজ কলকাতা পুর নিগমর মাসিক অধিবেশন সরগরম হয়ে রইল। অধিবেশনে আরএসপি কাউন্সিলার দেবাশীষ মুখার্জী ডেঙ্গু নিয়ে এক প্রশ্ন তুলে দাবি করেন, পুর নিগমর ৯৯ নম্বর ওয়ার্ডে চলতি বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৭৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে ডেপুটি মেয়রকে তিনি বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন। কিন্তু ডেপুটি মেয়র বলেন, যে ৭৩ জনের নামের তালিকা দেওয়া হয়েছে, তা খতিয়ে দেখে ৪২ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করা গেছে। ৮ টি ক্ষেত্রে ডেঙ্গু সংক্রমণ কিনা যাচাই করা হচ্ছে। বাকি ২৩ টির মধ্যে অধিকাংশই ৯৯ নম্বর ওয়ার্ড নয় অন্য স্থানে ডেঙ্গুর সংক্রমণ হয়েছে। দেবাশীষ মুখার্জির প্রশ্নের উত্তরে, অতীন বাবু বলেন, চলতি মাসে ৯ তারিখ পর্যন্ত ঐ ওয়ার্ডে ৯ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু দেবাশীষ বাবু অভিযোগ করেন,ঐ ওয়ার্ডে চলতি মাসে কেবল ১ জন আক্রান্তের হিসেব পুর নিগমর পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে দেওয়া হয়েছে। তার কোন জবাব না দিলেও অতীনবাবু বলেন, রাজনৈতিকভাবে খুশি করার জন্য তিনি বিরোধীদের অসত্য তথ্য মেনে নেবেন না।

এর পাশাপাশি দেবাশীষ মুখার্জী আরও অভিযোগ করেন, গতবছর পুর অধিবেশনে স্বাস্থ্যবিভাগের মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষ বলেছিলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রশিক্ষিত পতঙ্গবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রক আধিকারিক নিয়োগ করা হবে, কিন্তু বাস্তবে তা করা হয়নি। এই শুনে অতীন ঘোষ পাল্টা দাবি করেন, তিনি কখনোই বললেননি যে প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রশিক্ষিত আধিকারিক নিয়োগ করা হবে। এই অভিযোগ সত্য প্রমান করতে পারলে তিনি ডেপুটি মেয়র ও স্বাস্থ্য বিভাগের মেয়র পারিষদের পদ থেকে পদত্যাগ করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here